Press "Enter" to skip to content

সিলমপুর CAA বিরোধী হিংসায় গ্রেফতার দুই অবৈধ বাংলাদেশি নাগরিক

শেয়ার করুন -

পূর্ব দিল্লীর (Delhi) সিলমপুর (Seelampur) এলাকায় বিক্ষোভ প্রদর্শনের নামে হিংসা ছড়ানোর অপরাধে দুই বাংলাদেশিকে (Bangladeshi) গ্রেফতার করল পুলিশ। গত সপ্তাহে পুলিশ আশঙ্কা জাহির করেছিল যে, নাগরিকতা সংশোধন আইন (CAA) নিয়ে সিলমপুরে উগ্র প্রদর্শনে বাংলাদেশ থেকে পালিয়ে আসা অবৈধ অনুপ্রবেশকারীরা যুক্ত ছিল। সোমবার পুলিশ দুই বাংলাদেশি নাগরিককে গ্রেফতার করেছে। এই ঘটনার পর পুলিশের আশঙ্কা আরও মজবুত হল।

উত্তর পূর্ব দিল্লীতে গত সপ্তাহের ২১ ডিসেম্বর পুলিশ আর সিএএ বিরোধী প্রদর্শনকারীদের মধ্যে হওয়া সংঘর্ষে উগ্র প্রদর্শনকারীরা পুলিশের উপর পেট্রোল বোমা দিয়ে হামলা করে। ওই বোমা গুলো দেশি ফর্মুলাতে বানানো হয়েছিল। ওই সব বোমা বানানোর জন্য বেশি সামগ্রীর দরকার পড়েনা। আর এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় নিয়ে যাওয়ার জন্য এই বোমা অতটা বিপদজনক না বলেই জানা যায়। তবে এই বোমার হামলা অনেক শক্তিশালী হয়।

উত্তর পূর্ব দিল্লীর এক পুলিশ আধিকারিক জানান, ‘গ্রেফতার হওয়া হামলাকারীর নাম রহিস/রইস। তাঁর সাথে তাঁর সঙ্গি হাসানকেও পুলিশ গ্রেফতার করেছে।” উল্লেখ্য, রহিস মঙ্গলবার হওয়া প্রদর্শনে পুলিশ আর পাবলিকের উপর পেট্রোল বোমা দিয়ে হামলা চালায়। ওই হামলায় অনেকেই আহত হয়েছিলেন। রহিস যে কিছু হাতে করে নিয়ে দৌড়াচ্ছিল, সেই ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছিল।

দিল্লী পুলিশের অপরাধ দমন শাখার আধিকারিক অনুযায়ী, সিলম্পুর-জাফরাবাদে মঙ্গলবারে হওয়া হিংসার সময় একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়, ওই ভিডিওতে এক ব্যাক্তিকে বোমা ছোঁড়ার পর ঘতনাস্থল থেকে পালাতে দেখা যাচ্ছিল। গলায় মাফলার জড়িয়ে আর চোখে চশমা লাগিয়ে ওই ব্যাক্তি এই ঘটনা ঘটায়। ওই সন্দেহভাজনের সাথে আরও কয়েকজনকে আগে পিছনে পালাতে দেখা যায়। ভাইরাল ভিডিওতে পরিস্কার দেখা যাচ্ছিল যে, বিস্ফোটের সাথে সাথে ঘতনাস্থল থেকে পালানো ব্যাক্তির হাতও বিস্ফোরণে উড়ে গেছিল। তাঁর হাত দিয়ে রক্ত পড়ছিল আর মাংস ঝুলছিল।