Press "Enter" to skip to content

জোর করে দুই নাবালিকার ধর্মান্তকরণ করতে চাইছিল সোহেল আর হাসান! গণপিটুনি দিয়ে থানায় ইয়ে গেল জনতা

শেয়ার করুন -

ইন্দোরঃ মধ্যপ্রদেশের ইন্দোর থেকে এক অবাক করা মামলা সামনে এসেছে। সেখানে দু’জন অভিযুক্ত দুজন নাবালিকার সঙ্গে গাড়িতে অভদ্র ব্যবহার করছিল। এরপর জনতা অভিযুক্তকে ধরে মারধর করে পুলিশের হাতে তুলে দেয়। এরপর পুলিশ তদন্তে জানতে পারে যে, অভিযুক্ত নাবালিকাদের ধর্ম পরিবর্তন করার জন্য চাপ দিচ্ছিল।

বলে দিই, ইন্দোর পুলিশ শনিবার দুই যুবকের বিরুদ্ধে ধর্ম পরিবর্তন করার চাপ সৃষ্টি করার জন্য মামলা দায়ের করেছে। এই ঘটনা ইন্দোরের জাম গেট মন্ডলেশ্বরের আশেপাশে হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। পুলিশ দুই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে।

পুলিশ জানায় সোহেল আর হাসান নামের দুই অভিযুক্ত দুজন নাবালিকাকে নিজের গাড়িতে বসিয়ে জন্মদিন পালন করার জন্য ইন্দোর থেকে মণ্ডলেশ্বর নিয়ে গিয়েছিল। রাস্তায় ওই দুই যুবক নাবালিকাদের সঙ্গে অভদ্র ব্যবহার করে। নাবালিকারা সেটার বিরোধিতা করলে তাঁদের হুমকি দেওয়া হয়।

এরপর আশেপাশের মানুষ সেখানে জড়ো হয় আর অভিযুক্তদের ধরে ফেলে। জনতা প্রথমে দুই অভিযুক্তকে পেটায় এরপর তাঁদের মণ্ডলেশ্বর থানা পুলিশের হাতে তুলে দেয়। পুলিশ জানায়, দুই অভিযুক্তই নাবালিকাদের ধর্ম পরিবর্তন করে বিয়ে করার জন্য চাপ দিচ্ছিল। পুলিশ জানায়, এই চারজন একই স্কুলের পড়ুয়া। অভিযুক্তদের অনেক আবেদনের পর দুই নাবালিকা তাঁদের সঙ্গে জন্মদিন পালন করতে যায়।

উল্লেখ্য, পুলিশ দুই অভিযুক্তের বিরুদ্ধে ধার্মিক স্বাধীনতা অধিনিয়ম ২০২০ অনুযায়ী মামলা দায়ের ওড়ে। এর পাশাপাশি অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে পকসো আইনেও মামলা দায়ের করা হয়। পুলিশ অভিযুক্তদের গ্রেফতার করে পরবর্তী অ্যাকশন নেবে।