নতুন খবরপশ্চিমবঙ্গ

মাতঙ্গিনী হাজরাকে বর্ণপরিচয়ের স্রষ্টা বানিয়ে দিলেন অভিষেক! তুমুল কটাক্ষ বিজেপির

কলকাতাঃ রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনের প্রস্তুতি তুঙ্গে। প্রতিটি দলই ক্ষমতা দখলের জন্য কোমর বেঁধে মাঠে নেমে পড়েছে। একদিকে তৃণমূল যেমন ক্ষমতা ধরে রাখতে মরিয়া। তেমনই আরেকদিকে বিজেপি প্রথমবার রাজ্যে ক্ষমতায় আসতে যারপরনাই চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। আর এবারের নির্বাচনের হটস্পট হয়ে উঠেছে নন্দীগ্রাম। কারণ এবার নন্দীগ্রামের আসন থেকে একদিকে যেমন লড়ছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তেমনই ওনার বিপক্ষে দাঁড়িয়েছেন একদা ওনারই সৈনিক শুভেন্দু অধিকারী।

গতকাল মেদিনীপুরের চন্দ্রকোণায় প্রচারে গিয়েছিলেন তৃণমূলের সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। চন্দ্রকোণার ওই সভা থেকে একাধিক ইস্যু নিয়ে মোদী-শাহ এবং বিজেপিকে চাঁচাছোলা ভাষায় আক্রমণ করলেন ডায়মন্ড হারবারের তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। অমিত শাহকে বহিরাগতদের ‘নায়ক’ বলে কটাক্ষ করে তিনি বললেন, ‘মেদিনীপুরে বসে রয়েছেন বহিরাগতদের নায়ক। বিজেপিকে ভোট দেওয়ার অর্থ খাল কেটে কুমির আনা। আমদাবাদে স্টেডিয়ামের নাম পাল্টে ‘মোদী’ রেখেছেন। এবার দেখবেন মেদিনীপুরের নাম পাল্টে মোদিনীপুর করে দেবে’।

বিজেপির সোনার বাংলা গড়ার পরিকল্পনাকে ব্যঙ্গ করে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘গরুর দুধ থেকে সোনা বার করে দেবেন দিলীপ ঘোষ, আর সেই সোনা দিয়েই দেখবেন সোনার বাংলা গড়ছেন অমিত শাহ। যদি তাই হত, তাহলে কেন সোনার মহারাষ্ট্র, সোনার উত্তরপ্রদেশ, সোনার ঝাড়খন্ড হয়নি?’

মমতা ব্যানার্জির আঘাতের প্রসঙ্গ তুলে বিজেপিকে আক্রমণ করে বলেন, ‘বিজেপি মহিলাদের সম্মান দিতে জানে না। এক মহিলার উপর আঘাত করতে গিয়ে চূর্ণ-বিচূর্ণ হয়ে গোটা একটা দল। জোর করে যেমন মধ্যপ্রদেশ, বিহার দখল করেছে ওঁরা, তেমনই জোর করে বাংলাকে গুজরাট বানানোর চেষ্টা করছে’।

গতকালের অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বক্তব্যের একটি অংশ তুলে ধরে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভিডিও পোস্ট করেছে। বিজেপি। গেরুয়া শিবিরের তরফ থেকে পোস্ট করা ওই ভিডিওর ক্যাপশনে লেখা হয়েছে, ‘অবিশ্বাস্য! বর্ণপরিচয়ের স্রষ্টা কে? এটাও জানে না ভাইপো! এরা বাঙালী জাতির কলঙ্ক!” বিজেপি পোস্ট করা ভিডিওতে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে বলতে শোনা যাচ্ছে যে, বর্ণপরিচয়ের স্রষ্টা মাতঙ্গিনী হাজরা। বিজেপি ভিডিও পোস্ট করে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে বাংলার কলঙ্ক বলে আখ্যা দিয়েছে।

বলে রাখি, ওই ভিডিওর সত্যতা যাচাই করা আমাদের পক্ষে সম্ভব হয়নি। বিজেপির তরফ থেকে ওই ভিডিও কোনোরকম ভাবে কাটছাঁট করে পোস্ট করা হয়েছে কি না, সেটা আমাদের পক্ষে জানা সম্ভব হয়নি।

Related Articles

Back to top button