Press "Enter" to skip to content

চারদিন পর হায়দ্রাবাদ গণধর্ষণ নিয়ে মুখ খুললেন মুখ্যমন্ত্রী!

শেয়ার করুন -

তেলেঙ্গানার রাজধানী হায়দ্রাবাদে (Hyderabad) মহিলা পশু চিকিৎসককে গণ ধর্ষণ করে তাঁকে হত্যা করার চারদিন পর মুখ্যমন্ত্রী কেসিআর (K Chandrashekhar Rao) প্রথমবার প্রতিক্রিয়া দিলেন। উনি এই মামলায় শীঘ্রই ন্যায় বিচারের জন্য ফাস্ট ট্র্যাক কোর্ট গঠনের নির্দেশ দিয়েছেন। কে চন্দ্রশেখর রাও চারদিন পর এই মামলায় প্রথমবার প্রতিক্রিয়া দিয়ে সমস্ত আধিকারিকদের নির্দেশ দিয়েছেন যে, এই ঘটনার যেন দ্রুত গতিতে তদন্ত হয়।

মুখ্যমন্ত্রী কেসিআর বলেন, ‘দোষীদের যত তাড়াতাড়ি সম্ভব পাকড়াও করে তাঁদের কড়া শাস্তি দিতে হবে।” মুখ্যমন্ত্রী এই মামলার জন্য ফাস্ট ট্র্যাক আদালত গঠনের নির্দেশও দিয়েছেন। নিজের প্রথম বয়ানে চন্দ্রশেখর রাও চার জন দ্বারা পশু চিকিৎসক প্রিয়াঙ্কা রেড্ডির ধর্ষণ করে খুনের ঘটনাকে ভয়াবহ বলে আখ্যা দিয়েছেন। এবং উনি এই ঘটনায় দুঃখও প্রকাশ করেছেন। ওনার কার্যালয় দ্বারা জারি করা একটি বয়ান অনুযায়ী, ফাস্ট ট্র্যাক আদালত গঠন করে দোষীদের কড়া শাস্তি সুনিশ্চিত করা এবং মহিলা পশু চিকিতসকের পরিবারের পাশে দাঁড়ানোর নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রশেখর রাও।

 

রাজ্যের আইটি মন্ত্রী রামরাও কেন্দ্র সরকারের কাছে আবেদন করেছেন যে, কেন্দ্র সরকার যেন আইপিসি আর সিআরপিসিতে বদল এনে এরকম দোষীদের সর্বোচ্চ সাজা দেওয়ার আইন আনে। আপনাদের জানিয়ে রাখি, হায়দ্রাবাদের এক পশু চিকিৎসককে একা পেয়ে চারজন দুষ্কৃতী গণধর্ষণ করে, এরপর তাঁকে নির্মম ভাবে হত্যাও করে তাঁরা। তাঁকে হত্যা করার জন্য তাঁর গায়ে কেরোসিন তেল ঢেলে আগুন জ্বালিয়ে দেয় ওই চারজন।

এরপর তাঁর দগ্ধ দেহ ব্রিজ থেকে নীচে ফেলে দেওয়া হয়। নরপিশাচের মতো এই কাণ্ডে গোটা দেশ ক্ষোভে ফুঁসছে। সবাই এই ঘটনার পিছনে জড়িতদের কড়া শাস্তি চাইছে এবং ধর্ষণ রোখার জন্য দেশে কড়া আইন আনার দাবি জানাচ্ছে।