নতুন খবরভারতবর্ষ

তালিবানকে ইস্যুতে ভারতের পরবর্তী প্ল্যান কি! অজিত দোভালের সাথে জরুরী মিটিং সারলেন PM মোদী

আফগানিস্তান তালিবানের দখলে আসার পর থেকেই পট পরিবর্তন শুরু হয়েছে। ভারতের দুই পরম শত্রু চীন ও পাকিস্তান তালিবানদের সহযোগিতা করার জন্য এগিয়ে এসেছে, একটাই লক্ষ্য ভারতের ক্ষতিসাধন। ফলত কিছুটা দুশ্চিন্তায় ভারত। ভারত আফগানিস্তানে একটি বৃহৎ অঙ্ক বিনিয়োগ করেছে, সেই বিনিয়োগ নিয়ে তৈরি হয়েছে উদ্বেগ। পাশাপাশি পাকিস্তানের নির্দেশ মোতাবেক কাশ্মীর নিয়েও মন্তব্য করতে শুরু করেছে তালিবান। তাই অদূর ভবিষ্যতে ভারতের সমস্যা বাড়বে বলেই চিন্তা। দেশের সুরক্ষার কথা চিন্তা করে গুরুত্বপূর্ণ বৈঠকে বসেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

সোমবার নিজ বাসভবনে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা ও অজিত ডোভাল, প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং ও সেনাসর্বাধিনায়ক জেনারেল বিপিন রাওয়াতের সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক সারেন তিনি। আফগানিস্তানে ৩৪ টি প্রদেশ দেড় বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করেছে ভারত। তালিবান দখলের পর পরিস্থিতি কোন দিকে গড়াবে এবং ওই বিনিয়োগের ভবিষ্যত কি হবে এবং আফগানিস্তানের পক্ষ থেকে ভারতে যেন নতুন করে কোনো হামলা যাতে না হয় সেবিষয়ে আলোচনা করা হয়েছে এই বৈঠকে।

এই প্রথম নয় এর আগেও সর্বদলীয় বৈঠকে বসেছিলেন প্রধানমন্ত্রী। আফগানিস্তান সম্পর্কে ভারতের নীতি নির্ধারণ নিয়ে আলোচনা করা হয়েছিল ওই বৈঠকে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বিদেশমন্ত্রককে আফগানিস্তান সম্পর্কিত তথ্য জমা দেওয়ার জন্যও বলেছিলেন। তালিবান আফগানিস্তান দখলের পর থেকেই বোঝা গিয়েছে চীন ও পাকিস্তান তাদের সমর্থনে রয়েছে।

অন্যদিকে পাকিস্তানের কাছে কাশ্মীর চিরকালীন মাথাব্যথার কারণ। অবশ্য তালিবান মুখপাত্র জানিয়েছে কাশ্মীর একান্তই ভারত পাকিস্তানের অভ্যন্তরীণ ব্যাপার, সে বিষয়ে তারা কোনোরকম হস্তক্ষেপ করবে না। যদিও দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে কোনোরকমের ঝুঁকি নিতে রাজি নয় ভারত।

ভারত কাশ্মীর রক্ষার জন্য আগাম কি রণকৌশল গঠন করতে চলেছে, সে নিয়েই এই গোপন আলোচনা। আফগানিস্তানের প্রায় চারশোটিরও অধিক প্রকল্প চালু রয়েছে ভারতের তরফে। তালিবান সূত্রে যদিও আশ্বাস মিলেছে, তারা এই প্রকল্পগুলির ক্ষতি করবে না। কিন্তু এসবের মধ্যে আফগানিস্তানে নিজেদের আধিপত্য বিস্তারের জন্য ছক কষছে চীন। আগামী দিনে চীন আফগানভূমে নিজেদের খাঁটি শক্ত করে পূর্ব লাদাখ সহ সীমান্ত এলাকায় নতুন করে সমস্যা তৈরি করতে পারে। সেই সমস্যা সমাধানের উপায় নিয়ে চিন্তামগ্ন ভারত।

Related Articles

Back to top button