নতুন খবরভারতবর্ষ

স্ত্রীকে সঙ্গে নিয়ে হিন্দু ধর্ম গ্রহন করলেন মালায়ালাম চলচিত্র নির্মাতা! ফিল্মি কায়দায় পাল্টে নিলেন নিজেদের নাম

বিখ্যাত মালায়ালাম চলচিত্র নির্মাতা আলী আকবর হিন্দু ধর্ম গ্রহন করেছেন। বৃহস্পতি বার 13 জানুয়ারি তিনি স্ত্রী লুসিমার সাথে হিন্দু ধর্ম গ্রহন করেন। এখন থেকে তিনি রাম সিংহন নামে নিজেকে পরিচয় দেবেন।সিডিএস জেনারেল বিপিন রাওত যেদিন দুর্ঘটনার কবলে পড়ে শহীদ হোন সেদিন কট্টরপন্থীরা যেভাবে আনন্দ উল্লাস করেছিল তা পরিচালককে মানসিকভাবে আহত করেছিল। এরপর তিনি 2021 এর ডিসেম্বর মাসে সনাতন ধর্ম গ্রহণ করার ঘোষণা করেন।

আলী আকবর ও তার স্ত্রী লুসিমার কিছু ছবি সোশ্যাল মিডিয়াতে সামনে এসেছে। যেখানে দেখা যাচ্ছে তারা দুইজন পাশাপাশি বসে এক যজ্ঞ কুণ্ডের কাছে যজ্ঞ করছেন। আকবর সাদা পোশাক পরা কাঁধে তার গেরুয়া বস্ত্র, হিন্দু রীতি মেনে শুদ্ধি অনুষ্ঠান এ অংশগ্রহণ করেছেন। এই খবর নিশ্চিত করেছেন বিশ্ব হিন্দু পরিষদ ও হিন্দু সেবা কেন্দ্রর নেতা প্রতিশ বিশ্বনাথ।

আলী আকবরের পূজার একটি ছবি শেয়ার করে প্রতিশ বিশ্বনাথ লিখেছেন, “ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি ঘটেছে রাম সিংহন এর চরিত্রে আলী আকবর।” এছাড়াও প্রতিশ বিশ্বনাথ লিখেছে হ্যাশট্যাগ ” ghar wapsi”
আলী আকবরের নতুন নামকরণের পেছনেও একটি মজার গল্প শোনা যাচ্ছে। কথিত আছে, প্রায় আট দশক আগে মালাবারে একই রকম এক ব্যক্তি ইসলাম ত্যাগ করে নিজের নাম রেখেছিলেন রাম সিংহন। এরপর ধর্ম অবমাননার অভিযোগে ওই ব্যক্তির বাড়িতে হামলা চালায় একদল উন্মাদী জনতা। রাম সিংহন ও তার ভাইকে হত্যা করা হয়। তার পরিবারের অন্য সদস্যদের জোর করে তুলে নিয়ে যায় অজ্ঞাত স্থানে। দেশ স্বাধীনের মাত্র কয়েক সপ্তাহ আগে এই ঘটনা ঘটেছিল।

বিপিন রাওয়াতের হেলিকপ্টার দুর্ঘটনার পর আলী আকবর ফেসবুক লাইভে ইসলাম ত্যাগের কথা ঘোষণা করেন। তিনি বলেছিলেন, “এটা মেনে নেওয়া যায় না। তাই আমি আমার ধর্ম ত্যাগ করছি, আমার বা আমার পরিবারের অন্য কোন ধর্ম নেই। “আমি যে জামা নিয়ে জন্মেছিলাম তার একটি টুকরো আমি ফেলে দিচ্ছি,”

তিনি লাইভে বলেন যখন তিনি সিডিএস রাওয়াতের মৃত্যুতে লাইভ ভিডিও তৈরি করা শুরু করেন, তখন উগ্র ইসলামপন্থীরা তার ভিডিওতে হাজার হাজার হাসির ইমোজি পাঠিয়ে মজা করে। যা তার অনুভূতিতে আঘাত করেছিল। তার জন্যই তিনি এই সিদ্ধান্ত নেন।
এই নিয়ে প্রতিশ বিশ্বনাথ বলেছেন বর্তমান ইসলাম প্রজন্ম কে দেখে খুব ভালো লাগছে তারা বুঝতে পেরেছে কিভাবে তাদের পূর্বপুরুষ দের জোর করে ধর্মান্তরিত করা হয়েছিলো। তারা এখন নিজের শিকড় এ ফিরে আসছে।

Related Articles

Back to top button