Press "Enter" to skip to content

লাউডস্পীকারে আযান দেওয়ার দাবিতে আদালতে গেছিলেন সাংসদ আফজল আনসারি! আদালত জানাল, এটা ইসলামে অনিবার্য না

শেয়ার করুন -

লখনউঃ এলাহাবাদ হাইকোর্ট (Allahabad High Court) শুক্রবার একটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তে বলে, আযান ইসলাম ধর্মের একটি আবশ্যক আর অভিন্ন অংশ হতে পারে, কিন্তু লাউডস্পীকার অথবা আওয়াজ বাড়িয়ে দেওয়া অন্য কোন উপকরণের মাধ্যমে আযান দেওয়া ইসলামের অভিন্ন অংশ হতে পারে না।

আদালত নিজের সিদ্ধান্ত জানান, এর জন্য কোন পরিস্থিতি তেই রাত ১০টা থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত লাউডস্পীকার বাজানর অনুমতি দেওয়া যাবে না। আদালত জানায়, ধ্বনি দূষণ মুক্ত ঘুম সবার জীবনের মূল অধিকার। কাউকে নিজের মূল অধিকারের জন্য অন্যের মূল অধিকার লঙ্ঘন করার অধিকার দেওয়া যাবে না। উত্তর প্রদেশের গাজীপুরের সাংসদ আফজল আনসারির (afzal ansari) লাউডস্পীকারে আযান বন্ধ করার বিরুদ্ধে দাখিল একটি পিটিশনে আদালত এই সিদ্ধান্ত নেয়।

আফজল আনসারি

গাজীপুরের সাংসদ আফজল আনসারি আদালতে আবেদন দাখিল করে বলেছিলেন যে, গাজীপুরের মানুষের ধর্মের মৌলিক অধিকারের সুরক্ষা দেওয়ার জন্য গাজীপুরের মসজিদ থেকে লাউডস্পীকারের মাধ্যমে আযান দিতে দেওয়ার জন্য রাজ্য সরকারকে নির্দেশ দিতে।

কিন্তু আদালত ওনার এই আবেদন খারিজ করে দেয়। প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী সালমান খুরশিদও ফারুখাবাদ এবং অন্যান্য জেলার মুসলিমদের খাতিরে এরকম ভাবেই আদালতের দরজায় কড়া নেড়েছিলেন। খুরশিদ বলেছিলেন, আযান ইসলামের একটি অনিবার্য অংশ। তাই মসজিদ থেকে লাউডস্পীকারের মাধ্যমে আযান দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হোক।

আপনাদের জানিয়ে দিই, উত্তর প্রদেশের যোগী সরকার অনেক দিনে আগেই রাজ্যের মসজিদ গুলোতে লাউডস্পীকারে আযান দেওয়া নিষিদ্ধ করেছে।