নতুন খবরভারতবর্ষ

শরনার্থী হিন্দুদের পাকিস্তান প্রেরণ করছিল রাজস্থানের কংগ্রেস সরকার! আটকে দিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

পাকিস্তান থেকে ভারতে এসে রাজস্থানে ঠাঁই নিয়েছিল কিছু হিন্দু শরনার্থী। রাজস্থানের কংগ্রেস সরকার সকলকে পুনরায় পাকিস্তান পেরণ করার সিদ্ধান্ত নেয়। ঘটনা জানা জানি হতেই সোশ্যাল মিডিয়ার তীব্র প্রতিবাদ জানাই হিন্দু সমাজ। তা সত্ত্বেও নিজের সিদ্ধান্তের উপর দৃঢ় থাকে রাজস্থান সরকার। খবর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের কান অবধি পৌঁছালে তৎকাল একশন শুরু হয়। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ (Amit Shah) বিষয়টিতে হস্তক্ষেপ করে হিন্দুদের প্রত্যর্পণ আটকে দেন। নিজের ক্ষমতার ব্যাবহার করে পাকিস্তানি শরনার্থী হিন্দুদের প্রত্যর্পনের উপর নিষেধাজ্ঞা লাগান অমিত শাহ।

বিদেশীদের হস্তান্তর প্রসঙ্গে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক এই আদেশটি স্থগিত করার জন্য তার শক্তি ব্যবহার করেছে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের নির্দিষ্ট কিছু কর্মকর্তা পাশাপাশি সীমান্ত অঞ্চলের কয়েকজন কর্মকর্তাকেও এ ব্যাপারে নির্দিষ্ট অধিকার দেওয়া হয়েছে। রাজস্থানের অশোক গেহলটের নেতৃত্বে কংগ্রেস সরকার পাকিস্তানি হিন্দুদের ভারত ছেড়ে পাকিস্তানে চলে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল। রাজ্য সরকারের এই আদেশ ছিল তাদের জন্য যারা পাকিস্তানের সিন্ধু প্রদেশ থেকে ধর্মীয় ভিসায় ভারতে এসেছিলেন। আসলে এরা সমস্ত হিন্দুরা তারাই যারা পাকিস্তান থেকে বাস্তুচ্যুত হয়ে ভারতে বসবাস করছেন।

এই পরিবারগুলির সকলেই জয়সালমার এবং এর আশেপাশের সীমান্ত অঞ্চলে বাস করে। একটি প্রতিবেদন অনুসারে, বর্তমানে এই পরিবারের 19 সদস্য এখানে বাস করছেন। এই সদস্যদের মধ্যে তিনটি সিবিআই এবং জেলা প্রশাসনের দল পাকিস্তানে যাওয়ার নোটিশ পেয়েছিলেন। জয়পুরের অমরেন্দ্র রত্নু, যিনি এই শরণার্থীদের পক্ষে কথা বলছেন, তিনি বলেছিলেন- “রাজস্থান পুলিশ এই লোকদের ওয়াগাহ-আটারী সীমান্তের মাধ্যমে পাকিস্তানে প্রেরণ করতে চায় তবে আমরা এটি বন্ধে যথাসাধ্য চেষ্টা করছি।” আমরা সকাল থেকে এই জন্য টুইট করছি। এই বিষয়ে, আমরা অরুণ কুমার এবং সংঘের অন্যান্য বড় নেতাদের সাথে কথা বলেছি। বিষয়টি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যন্ত চলে গেছে। আমরা তাদের ডিপোর্ট করতে দেব না, আমাদের ক্রমাগত চাপ রাখতে হবে। ”

এখন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের এই পদক্ষেপের ফলে এই হিন্দু শরণার্থীরা ভারতে থাকতে পারবেন। পাকিস্তানে হিন্দু ও শিখদের অবস্থা আরও খারাপ এবং তাদের সাথে অমানবিক আচরণ করা হয়। ভুয়া মামলা চাপিয়ে সংখ্যালঘুদের শাস্তি দেওয়ার অনেক ঘটনা ঘটেছে। হিন্দু ও শিখদের এক অন্য চোখে দেখা হয় পাকিস্তান ও বাংলাদেশের মতো ইসলামিক দেশগুলিতে। ভারতে যেখানে সংখ্যালঘুদের তোষণ করার ঘটনা ঘটে অন্যদিকে বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের সংখ্যালঘুদের লাগাতার অত্যাচারের শিকার হতে হয়।

Related Articles

Back to top button