আন্তর্জাতিকনতুন খবর

খালিস্তানি সমর্থককে সরিয়ে কানাডার প্রথম হিন্দু মন্ত্রী হলেন অনিতা আনন্দ

নয়া দিল্লিঃ কানাডার (Canada) প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো (Justin Trudeau) মঙ্গলবার নিজের মন্ত্রীমণ্ডলে রদবদল করেন। ভারতীয় বংশোদ্ভূত অনিতা আনন্দকে (Anita Anand) ট্রুডোর মন্ত্রীসভায় জায়গা দেওয়া হয়। অনিতা এই দায়িত্ব পাওয়ার পর তিনিই দেশের প্রথম হিন্দু প্রতিরক্ষা মন্ত্রী হলেন। এর আগে ভ্যানকুভার পুলিশ ডিপার্টমেন্টে গোয়েন্দা থাকা ৫১ বছর বয়সী হরজীত সজ্জন কানাডার প্রতিরক্ষা মন্ত্রী ছিলেন। ওনাকে এখন ইন্টারন্যশানাল ডেভলপমেন্ট এজেন্সিতে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। ৫৪ বছর বয়সী অনিতা আনন্দ লাগাতার দ্বিতীয়বার ওকভিল থেকে সাংসদ হয়েছেন।

হরজীত সজ্জন সেনায় যৌন নির্যাতন মামলাটিকে যেভাবে হ্যান্ডেল করেছিলেন, তা নিয়ে ওনার অনেক সমালোচনা হয়েছিল। এমনকি ওনাকে খালিস্তানি সমর্থক আখ্যা দিয়ে পাঞ্জাবের তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিং ওনার সঙ্গে সাক্ষাৎ পর্যন্ত করেন নি। ট্রুডোর নতুন মন্ত্রীসভা জেন্ডার ব্যালেন্সকে মাথায় রেখে করা হয়েছে। বর্তমানে ওনার মন্ত্রীসভায় ৩৮ জন সদস্য রয়েছেন। এক মাস আগেই লিবারেল পার্টি দ্বিতীয়বার ক্ষমতায় ফেরে।

পেশায় কর্পোরেট অ্যাডভোকেট অনিতা আনন্দ কর্পোরেট শাসন নিয়ে বেশ অভিজ্ঞ। ব্যবসা এবং অপারেশন পরিচালনার জন্য প্রয়োজনীয় নিয়ম-কানুন সম্পর্কে তার পুঙ্খানুপুঙ্খ জ্ঞান রয়েছে। অনিতা আনন্দ, হরজীত সজ্জন এবং বর্দিশ ছাগ্গার ছিলেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত তিন মন্ত্রী যারা সেপ্টেম্বরে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে জয়ী হন। ২০১৯ সালের নভেম্বরে, অনিতা ‘জনসেবা ও প্রকিউরমেন্ট’ মন্ত্রী হিসেবে নিযুক্ত হন। উনি সাম্প্রতিক নির্বাচনে ৪৬% ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন।

যদিও গতবার তিনি ৩০ হাজার ২৬৫ টি ভোট পেয়ে জয়ী হওয়ার পর এবার ২৮ হাজার ১৩৭টি ভোট পান। তবুও তিনি ৩ হাজার ৭০৭ ভোটে জয়ী হন। করোনার সময়ে ওনাকে ভ্যাকসিন বিভাগের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল আর প্রধানমন্ত্রী ট্রুডোর সঙ্গে ওনাকে অনেক নির্বাচনী জনসভাতেই দেখা গিয়েছিল।

Related Articles

Back to top button