নতুন খবরভারতবর্ষ

ধর্ষকদের এনকাউন্টার করে ঠিক কাজ করেনি পুলিশ, আমি এনকাউন্টারের বিরুদ্ধে: আসাউদ্দিন ওয়েসী, হায়দ্রাবাদের সাংসদ।

হায়দ্রাবাদে এক মহিলা ভেটেরিনারি ডাক্তারকে গণধর্ষণ ও খুন করা চার আসামিকে শুক্রবার সকালে একটি এনকাউন্টার চলাকালীন তেলেঙ্গানা পুলিশ হত্যা করেছে। যা নিয়ে সেকুলার গ্যাং আগে থেকে কান্নায় ভেঙে পড়েছে। সেকুলার গ্যাং এর পর এবার কট্টরপন্থীদের গ্যাংও হাই তোবা করার উপক্রমে মাঠে নেমে পড়েছে। এর মধ্যে, হায়দ্রাবাদের গণধর্ষণের আসামির সমর্থনে দাঁড়িয়ে হায়দ্রাবাদের সাংসদ ও AIMIM প্রধান আসাদুদ্দিন ওয়েসী (Asaduddin Owaisi) একটি বড় বক্তব্য এসেছে। হায়দ্রাবাদে গণধর্ষণের আসামির লড়াইয়ের বিষয়ে আসাদউদ্দিন ওয়েসী বলেছেন, “আমি এই এনকাউন্টারের বিপক্ষে।”

Asaduddin Owaisi

তিনি আরও বলেন যে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনও এই এনকাউন্টারটির বিষয়ে খবর নিয়েছে। আসাউদ্দিন ওয়েসী ধর্ষকদের উপর পুলিশের কার্যবাহীকে সমালোচনা করেছেন। পুলিশ জানিয়েছে অপরাধীরা পুলিশের সাথে সংঘর্ষে নেমে পড়েছিল। এরপর পুলিশ বাধ্য হয়ে এনকাউন্টার করেছিল। এনকাউন্টারে ৪ জন ধর্ষক মারা পড়ে।

তবে এনকাউন্টার নিয়ে মমতা ব্যানার্জী ও সীতারাম ইয়েচুরির মতো লোকজন এনকাউন্টারের বিরোধিতা করেছে। মমতা ব্যানার্জী বলেছেন এই এনকাউন্টার করা উচিত হয়নি, কারণ পুলিশ নিজের হাতে আইন তুলে নিয়েছে। সীতারাম ইয়েচুরি বলেছেন প্রতিহিংসা কখনোই ন্যায়প্রদান করা হতে পারে না।

এই দুজনের পর আরো এক বড়ো রাজনৈতিক মুখ এনকাউন্টারের বিরোধিতায় নেমে পড়েছে। অপরাধীদের এনকাউন্টার করার জন্য কান্না কাটি আরম্ভ করেছেন। AIMIM নেতা আসাউদ্দিন ওয়েসী বলেছেন আমি এই এনকাউন্টারের বিরুদ্ধে। ওয়েসীর মন্তব্যের পর সোশ্যাল মিডিয়ায় আরো একবার AIMIM এর নেতাকে নিয়ে তীব্র সমালোচনা শুরু হয়েছে।

অন্যদিকে ঘটনার প্রতিক্রিয়া জানিয়ে তেলেঙ্গানার স্থানীয় লোকজন যা করেছে তা দেখার মতো।ঘটনা ঘটার পর, NH-44 কে কেন্দ্র করে বহু লোক জমায়েত হতে শুরু করে। বিশাল সংখ্যায় পুলিশ ও পুলিশ অফিসাররা জমা হতে থাকে। এরপর এলকার মানুষ পুলিশের উপর ফুল ছড়িয়ে পুলিশকে ধন্যবাদ জানায়। শুধু এই নয়, কিছুজন মিষ্টি নিয়ে এসে বিতরণ করতে শুরু করে। স্থানীয় যুবকরা হায়দ্রাবাদ পুলিশ জিন্দাবাদ শ্লোগান দিতে পুলিশকে সমর্থন ও ধন্যবাদ জানায়।

Related Articles

Back to top button