অপরাধনতুন খবর

মসজিদে একত্রিত হয়ে নামাজ পড়া থেকে রুখতে যাওয়া পুলিশের উপর হামলা! আহত পাঁচ

অসমে (Assam) লক্ষ্মীপুর জেলার একটি গ্রামে লকডাউনের সময় মসজিদে নামাজ পড়া বন্ধ করতে যাওয়া পুলিশ টিমের উপর হামলা করা হয়। এই হামলায় চার পুলিশ কর্মী আহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার রাতে যখন মসজিদে একত্রিত হয়ে নামাজ পড়ার ঘটনার কথা খবর পায় পুলিশ, তখন নওবৈচা (Nowboicha) থানার ইনচার্জ বিশ্বজিৎ নাথের নেতৃত্বে পুলিশের এক দল পন্ধোবা গ্রামে পৌঁছায়। এক আধিকারিক জানান, ‘মসজিদে একত্রিত হওয়ার সূচনা গ্রাম প্রধানের থেকে পাওয়া গেছিল।”

পুলিশের টিম যখন ঘটনাস্থলে পৌঁছায়, তখন মসজিদের ভিতরে ইমাম সহ ১২ জন উপস্থিত ছিল। আধিকারিকরা জানান, পুলিশ ইমামকে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে এভাবে নামাজ না পড়ার অনুরোধ করে। আধিকারিক জানান, পুলিশের টিম মসজিদের পাশে খোলা থাকা কয়েকটি দোকান বন্ধ করে দেয়।

উনি জানান, যখন পুলিশের টিম মসজিদের বাইরে বেরচ্ছিল তখন তাদের উপর হামলা করা হয়। পুলিশ এই হামলার জন্য প্রস্তুত ছিল আ। এই ঘটনার পর চার পুলিশকর্মী আর গ্রাম প্রধান আহত হন। এই ঘটনায় পুলিশের গাড়িতেও ভাঙচুর চালানো হয়।

এই ঘটনায় বিশ্বজিৎ নাথ, অসম পুলিশের কনস্টেবল করুনা বুজরবরুয়া, সিআইএসএফ এর জওয়ান ভুমিচার নরজারি আর সরোজ জাদন এবং গ্রাম প্রধান আবদুল জলিল ফরশি আহত হয়েছেন। পুলিশ জানান, সমস্ত আহতদের তৎকাল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তবে তাদের খুব গুরুতর চোট আসেনি বলেও জানায় পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাতে এক বরিষ্ঠ আধিকারিক ঘটনাস্থলে পৌঁছান আর লাউডস্পীকারের মাধ্যমে এলাকার মানুষকে বাড়িতেই থাকার নির্দেশ দেন।

এলাকায় প্রচুর পরিমাণে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এই ঘটনার লক্ষ্মীপুর থানায় ১২ জনের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হয়েছে আর তদন্ত জারি আছে।

Related Articles

Back to top button