নতুন খবরভারতবর্ষ

অসমের ২,৬৭৮ টি গ্রাম এখনো জলমগ্ন, ৩৩ টি জেলার ২৮ লক্ষ মানুষ চরম সমস্যার সন্মুখিন

গুয়াহাটিঃ বন্যার সন্মুখিন অসমের (Assam Floods) মানুষকে সরকার দ্বারা যথাসম্ভব সাহায্য করা হচ্ছে। রবিবার কামরুপের ত্রাণ শিবিরে থাকা মানুষদের সরকার দ্বারা রেশন বিতরণ করা হয়। বন্যার কারণে কামরূপের ১০ টি গ্রামের প্রায় ১৪ হাজার ৬২৫ জন মানুষ প্রবল সমস্যার সন্মুখিন। সরকারের তাঁদের কাছে প্রয়োজনীয় সামগ্রী পৌঁছে দেওয়ার সম্পূর্ণ প্রচেষ্টা চালাচ্ছে।

জানিয়ে দিই, অসমের ৩৩ টি জেলার মধ্যে ৩৩ টি জেলাই বন্যায় প্রভাবিত হয়েছে। বন্যার কারণে প্রায় ২৮ লক্ষ মানুষ চরম সমস্যার সন্মুখিন। বন্যার জলে হাজার হাজার মানুষের বাড়িঘর ডুবে গেছে। আর অনেক জায়গায়, রাস্তা এবং ব্রিজও ভেঙে গেছে। অসমের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ নিজেদের দৈনিক রিপোর্টে জানিয়েছে যে, গোটা অসমে বন্যার কারণে এখনো পর্যন্ত ১০৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে ২৬ জনের মৃত্যু ভূমি ধ্বসের কারণে হয়েছে। এছাড়াও এবার অসমের কাজিরাঙা জাতীয় উদ্যানে কমপক্ষে ৯০ টি বন্য পশুর মৃত্যু হয়েছে।

রাজ্যের মুখ্য সচিব কুমার সঞ্জয় কৃষ্ণ জানান, বন্যার ব্যবস্থাপনা নিয়ে কোন সমস্যা নেই। কারণ বন্যা এবং কোভিড-১৯ এর জন্য সরকারি কর্মচারীদের আলাদা আলাদা দল মোতায়েন করা হয়েছে। আপনাদের জানিয়ে দিই, শুক্রবার অসমে ২৮ টি জেলা বন্যায় প্রভাবিত ছিল। রবিবার আসতে আসতে সেটি ৩৩ টি জেলা হয়ে যায়।

যদিও হোজই আর পশ্চিম কারবী জেলায় বন্যার পরিস্থিতি এখন অনেকটাই স্বাভাবিক হয়েছে। ধুবরি জেলায় বন্যায় সর্বাধিক ৪.৬৯ লক্ষ মানুষ প্রভাবিত হয়েছেন। SDRF, জেলা প্রশাসন আর স্থানীয় মানুষরা মিলে গত ২৪ ঘণ্টায় ৫১১ জনের প্রাণ বাঁচিয়েছেন। ডেলি বুলেটিনে বলা হয়েছে যে, কমপক্ষে ২ হাজার ৬৭৮ টি গ্রাম এখনো জলমগ্ন আর ১ লক্ষ ১৬ হাজার ৪০৪ হেক্টর জমির ফসল বরবাদ হয়ে গেছে।

Back to top button
Close