Press "Enter" to skip to content

এবার পুরো বিশ্ব দেখবে প্রভু রামের শহর অযোধ্যার উন্নয়ন! করা হবে ওয়ার্ল্ড ক্লাস নগরী।

শেয়ার করুন -

অযোধ্যার রাম মন্দির নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের সিদ্ধান্তের পরে বিকাশের দ্বার উন্মুক্ত হয়েছে। আদালতের ১০৪৫ পৃষ্ঠার এই সিদ্ধান্তটি কেবল দীর্ঘ সংগ্রামের অবসান ঘটেনি, অযোধ্যা জনগণকে একটি নতুন উপহারও দিয়েছে। অযোধ্যা মেয়র হৃষীকেশ উপাধ্যায় রবিবার একটি মিডিয়া চ্যানেলকে বলেছেন যে তীর্থযাত্রা শহরের উন্নয়ন এখন গতি বাড়িয়ে তুলবে। উপাধ্যায় বলেছিলেন যে অযোধ্যার সরযূ নদীর তীরে ভগবান রামের একটি 151 মিটার উঁচু মূর্তি স্থাপন করা হবে। রাম মন্দির নির্মাণ ও পৃথিবীর বৃহত্তম রাম মূর্তি নির্মাণের ব্লুপ্রিন্টও তৈরি হয়েছে। মন্দির নির্মাণের জন্য সরকার ঢেলে সাজাবে তা নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই। অন্যদিকে বিশালকায় রাম মূর্তি নির্মাণের জন্য সরকার ইতি মধ্যে ৬০০ কোটি টাকা বরাদ্দ করেছে।

সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশনার পরে কেন্দ্রীয় সরকার এবং উত্তরপ্রদেশ সরকার মিলে এর জন্য একটি রূপরেখা প্রস্তুত করবে। অযোধ্যায় উন্নয়ন কাউন্সিল গঠিত হবে। এই কাউন্সিল গঠনের মূল লক্ষ্য হবে অযোধ্যায় পর্যটন ও উন্নয়নের প্রচার। আন্তর্জাতিক স্তরের বাস স্টেশন থেকে একটি ওয়ার্ল্ড ক্লাস বিমানবন্দর তৈরিরও পরিকল্পনা রয়েছে যাতে বিশ্বের প্রতিটি কোণ থেকে অযোধ্যাতে আগত ভক্তদের যাতে ভোগান্তিতে না পড়তে হয়। একই সাথে, অযোধ্যার বিকাশে রেলস্টেশনকে অনেক বেশি গুরুত্ব দেওয়ার প্রস্তাব দেওয়া হচ্ছে। স্টেশনকে অযোধ্যার রাম মন্দিরের মতো করে সাজানো হবে।

প্রাচীন কাল অযোধ্যা ভারতের একটা বড়ো শহর ছিল, যার খ্যাতি পুরো বিশ্বজুড়ে ছিল। সেক্ষেত্রে অযোধ্যাকে নতুনভাবে সাজানোর চেষ্টা করা হবে।  কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি মন্ত্রক এই পুরো কর্মসূচিতে একটি নোডাল এজেন্সি হিসাবে কাজ করবে। যোগী আদিত্যনাথের নেতৃত্বে থাকা রাজ্য সরকার ও নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বে কেন্দ্র সরকার উভয় এক্ষেতে কাজ করবে। আদালতে রায় আসার পর যোগী আদিত্যনাথ বলেছেন, সুপ্রিম কোর্টের রায় থেকে একটা বড়ো ইঙ্গিত পাওয়া গেছে। এক ভারত শ্রেষ্ঠ ভারত নির্মাণের দিকে ভারত এগিয়ে যাচ্ছে।