নতুন খবরপশ্চিমবঙ্গ

সঞ্জিতের সঙ্গে রুবিনার প্রেম মেনে নেয়নি সমাজ, করুণ পরিণতি হল বাংলার যুগলের

বলাগড়ঃ ধর্ম যেন প্রেমের রাস্তায় বাধা হয়ে না দাঁড়ায়। সর্বত্রই এই কথা বলতে শোনা যায় প্রায় সবাইকেই। কিন্তু এটা যে একটি সংলাপ মাত্র, তা বারবার প্রমাণিতও হয়েছে। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকেই ভিন ধর্মে প্রেম করার জন্য বারবার বঞ্চনার শিকার হতে হয়েছে প্রেমিক-প্রেমিকাকে। আর এবার তেমনই ঘটনা ঘটে গেল এই বাংলাতেই।

হুগলীর বলাগড়ের তরুণ-তরুণী ভিন ধর্মের হলেও, একে অপরের সঙ্গে আজীবন চলার শপথ নিয়েছিল। কিন্তু বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছিল সমাজ আর পরিবার। আর এবার সেই বাধাকে দূরে সরিয়ে এক হতে করুণ সিদ্ধান্ত নিল তাঁরা। বেঁচে থেকে নয়, মরে গিয়ে তাঁরা এক হয়ে থাকবে! এমন সিদ্ধান্ত নিয়ে সরাসরি রেল লাইনে গিয়ে শুয়ে পড়ে তাঁরা।

শনিবার রাতে হুগলীর বলাগড়-খামারগাছি রেল লাইনের মাঝে ঘটে যাওয়া এই ঘটনায় দুই পরিবারেই শোকের ছায়া নেমে এসেছে। পুলিশ জানিয়েছে যে, মৃত যুবকের নাম সঞ্জিত সর্দার। এবং যুবতীর নাম রুবিনা খাতুন। তাঁরা ১৬ বছর বয়স থেকে একে অপরের সঙ্গে প্রেমে জড়িয়ে পড়ে। কিন্তু দুজনার ধর্ম ভিন্ন হওয়ায় কোনও পরিবারই যে তাঁদের সম্পর্ক মেনে নেবে না, সেটা তাঁরা ভালো মতোই জানত।

দুজনাই একবার পালিয়ে গিয়েছিল। কিন্তু, বাড়ি থেকে চাপ আর পুলিশের হস্তক্ষেপের কারণে ফিরে আসতে বাধ্য হয় তাঁরা। এরপর রুবিনার বাড়ির লোক তাঁর বিয়ে অন্য জায়গায় ঠিক করে। এই জোর জবরদস্তি বিয়েতে রাজি ছিল না রুবিনা। আর সেই কারণে সে গোপনে সঞ্জিতের সঙ্গে যোগাযোগ রেখে চলছিল।

দুজনার মধ্যে ভালোবাসা থাকলেও তাঁরা এই সম্পর্কের কোনও পরিণতি খুঁজে পায়নি। আর এই কারণেই তাঁরা শেষমেশ আত্মহত্যার পথ বেছে নেয়। শনিবার দুজনা রেল লাইনে শুয়ে প্রাণ দেয়। ঘটনার পর দুই পরিবার সহ গোটা এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। কালনা GRP দুজনার দেহ নিয়ে যায় ময়নাতদন্তের জন্য।

Related Articles

Back to top button