Press "Enter" to skip to content

১২ টি মিরাজ ২০০০, এক হাজার কেজির বোমা! বালাকোটে যেভাবে অসাধ্য সাধন করেছিল ভারতীয় বায়ুসেনা

শেয়ার করুন -

নয়া দিল্লীঃ কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ বায়ুসেনার বীরতাকে স্যালুট জানিয়ে বলেন, ‘ ২০১৯ সালে আজকের দিনে ভারতীয় বায়ুসেনা পুলওয়ামা জঙ্গি হামলার জবাব দিয়ে নতুন ভারতের সন্ত্রাসবাদ বিরোধী নিজেদের নীতিকে পুনরায় স্পষ্ট করেছিল। পুলওয়ামার বীর শহীদদের স্মরণ আর বায়ুসেনার বীরতাকে স্যালুট জানাই। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বে দেশ আর আমাদের জওয়ানদের নিরাপত্তা সবার উপরে।”

কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং বায়ুসেনার অসাধারণ সাহসকে স্যালুট জানিয়ে বলেন, ‘বালাকোট এয়ার স্ট্রাইকের দ্বিতীয় বর্ষপূর্তিতে আমি ভারতীয় বায়ুসেনার অদম্য সাহস আর পরিশ্রমকে স্যালুট জানাই। বালাকোট স্ট্রাইকের সফলতা সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে অ্যাকশন নেওয়ার জন্য ভারতের দৃঢ় ইচ্ছাশক্তির প্রদর্শন করেছে। আমি আমাদের সশস্ত্র সেনাবাহিনীর উপর গর্ব করি। আমাদের সেনা ভারতকে সুরক্ষিত আর শক্তিশালী রাখবে।”

২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ এ ভোর ৩ঃ৩০ নাগাদ গর্জনের সঙ্গে পাকিস্তান অধিকৃত কাশ্মীরের ভিতরে ঢুকে ভারতীয় ফাইটার জেট জঙ্গি ঘাঁটি গুঁড়িয়ে দিয়েছিল। ভারতীয় বায়ুসেনার লড়াকু বিমান বালাকোটের ভিতরে ঢুকে জঙ্গি সংগঠন জইশ-এ-মহম্মদ এর আস্তানা গুঁড়িয়ে দিয়েছিল। এইদিনের ঠিক ১২ দিন আগে ১৪ ফেব্রুয়ারি পুলওয়ামায় হওয়া জঙ্গি হামলায় ভারতের ৪০ জন জওয়ান শহীদ হয়েছিলেন।

পুলওয়ামায় শহীদ হওয়া ৪০ জন জওয়ানের প্রতিশোধ নিয়েছিল মিরাজ বিমান। ভারতীয় বায়ুসেনার সুত্র অনুযায়ী, ২৬ ফেব্রুয়ারি ভোরে ভারতীয় লড়াকু বিমান মিরাজ ২০০০-এর একটি দল সীমান্ত পার করে পাকিস্তান অধিকৃত কাশ্মীরে জঙ্গি আস্তানায় হামলা করে, সেগুলোকে সম্পূর্ণ ধ্বস্ত করে দিয়েছিল। জঙ্গিদের আস্তানায় ১ হাজার কেজির বোমা নিক্ষেপ করা হয়েছিল। এই অভিযানে ১২ টি মিরাজ ২০০০ বিমান অংশ নিয়েছিল।