আন্তর্জাতিকনতুন খবর

একতাই বল! দীর্ঘ ৫০ বছর পর মহাশ্মশানের জমি উদ্ধার করল বাংলাদেশের হিন্দুরা

সূর্যের আলোকে আতস কাঁচ দিয়ে একত্রিত করলে তা আগুন জ্বালিয়ে দিতে পারে। একইভাবে হিন্দু সমাজ একত্রিত হলে নিজেদের গৌরভ পুনরুদ্ধার করতে পারে তথা অন্যায়কে হারিয়ে ধর্মের প্রতিষ্ঠা করতে পারে। এরই জলজ্যান্ত উদাহরণ দেখালো বাংলাদেশের হিন্দু সমাজ। বাংলাদেশের পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জ উপজেলার সোনাহার ইউনিয়নে অবস্থিত হিন্দু সম্প্রদায়ের মহাশ্মশানের জমিকে জোরপূর্বক অবৈধভাবে দখল করে রেখেছিল কট্টরপন্থীরা।

পেশী শক্তির ভয় দেখিয়ে এবং ছলনা করে মহাশ্মশানের জমিকে হাতিয়ে ছিল আফসার আলী নামের এক উন্মাদী। ল্যান্ড জিহাদ(জমি জিহাদ) করার জন্য আফসার আলি দাবি করেছিল যে মহাশ্মশানের জমি দাতা মধুসূদন বাবুর পুত্ররা এই জমি তার(আফসার আলি) বাবার কাছে বিক্রি করে দিয়েছেন। মহাশ্মশানের কমিটি কর্তৃপক্ষ জমিকে উদ্ধার করার চেষ্টা চালিয়ে যায়। তবে জোরপূর্বক আফসার আলি জমি কবজা করে রাখে।

তবে এখন হিন্দুদের একত্র প্রয়াসের দরুন মহাশ্মশানের জমিকে দখল মুক্ত করা হয়েছে বলে খবর আসছে। বাংলাদেশের হিন্দু সংগঠনগুলি, স্থানীয় হিন্দুরা এবং বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের একত্র প্রয়াসের দরুন জমিকে ফিরিয়ে এনেছে হিন্দুরা।

এই দখল মুক্ত অভিযানে প্রশাসনও যোগদান দিয়েছে। এই কারণে হিন্দু সমাজ প্রশাসনের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছে। ১৯৬৯ সালে মধুসূদন বাবুর ছেলেরা এই জমি আফসার আলির বাবাকে বিক্রি করেছিল বলে মিথ্যা দাবি করেছিল উন্মাদী।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশে এমন বহু জমি অবৈধভাবে দখল করে জমি জিহাদিরা। নিজেদের দুর্বল ভেবে আশাহীন হয়ে জমি পুনরুদ্ধারের চেষ্টা পর্যন্ত করে না শোষিত হিন্দুরা। তবে একত্রিত হলে হিন্দুরা যে নিজেদের গৌরব পুনরুদ্ধারে সক্ষম তা প্রমাণ করল বাংলাদেশের হিন্দুদের এই পদক্ষেপ।

Related Articles

Back to top button