আন্তর্জাতিকনতুন খবর

“মোদী বিরোধিতা করলেই তুলে নেওয়া হবে পিঠের চামড়া”- ঢাকার রাস্তায় নামল বিশাল পুলিশ বাহিনী

বাংলাদেশ সফরে রয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসের ৫০ বছর পূর্তির অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে আমন্ত্রিত রয়েছেন নরেন্দ্র মোদী। তবে শুধু অনুষ্ঠানে যোগদান নয়, বরং দুই দেশের আর্থিক দৃষ্টিকোন থেকেও গুরুত্বপূর্ণ। আর এই কারণে বেশকিছু ভারত বিরোধী শক্তি প্রধানমন্ত্রী মোদীর বাংলাদেশে সফরের সময় অস্থিরতা উৎপন্ন করার ভরপুর প্রয়াসে নেমে পড়েছে।

বাংলাদেশের কট্টরপন্থী গ্রুপগুলিকে আগেই ভারতের প্রধানমন্ত্রীর সফর নিয়ে হুমকি দিতে দেখা গেছে। ঢাকা ইউনিভার্সিটিতেও নরেন্দ্র মোদীর সফরকে কেন্দ্র করে বামপন্থী ও কট্টরপন্থীরা বিক্ষোভ দেখিয়েছে। যদিও বাংলাদেশের শুভচিন্তক ছাত্র সমাজকে বেশ সক্রিয়তার সাথে বিক্ষোভের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে দেখা গেছে। প্রধানমন্ত্রী মোদীর বিমান নামতে অবধি দেওয়া হবে না বলে হুমকি দিয়েছিল বাংলাদেশের কট্টরপন্থীরা।

বৃহস্পতিবার দিন এক দল বিক্ষোভকারী এয়ারপোর্ট ঘেরাও করতে উদ্যত হয়। অবশ্য বাংলাদেশে পুলিশ তাদের গ্রেফতার করে। এ সমস্থকিছুর মধ্যে শুক্রবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বাংলাদেশে পৌঁছেছেন। ঢাকা শহরে বিশাল পুলিশ বাহিনী নামিয়ে সুরক্ষা ব্যাবস্থাকে কড়াকড়ি করা হয়েছে। পুরো শহরকে সুরক্ষা ব্যবস্থায় মুড়ে ফেলা হয়েছে।

যদিও গতকাল থেকেই বাংলাদেশ পুলিশকে একশন মুডে দেখা গেছে। বৃহস্পতিবার দিন বেশকিছু মোদী বিরোধীকে বাংলাদেশ পুলিশ গ্রেফতার করে তাদের উপযুক্ত ওষুধ প্রদান করেছে যার মধ্যে শিশু হুজুর রফিকুল ইসলাম মাদানীও রয়েছেন। বাংলাদেশের সমস্ত কট্টরপন্থী গ্রুপ মূলত পাকিস্তানের উস্কানিতেই মোদী বিরোধী হওয়া তৈরির কাজ করছে বলে অনেকের ধারণা। বাংলাদেশের ইসলামিক গ্রুপ হিফাজত হুঁশিয়ারি দিয়েছে যে তারা ভারতের প্রধানমন্ত্রীর রাস্তা আটকে দেবে। লক্ষণীয় বিষয় যে, বাংলাদেশে ভারত বিরোধী হওয়া তৈরি করতে মূলত হুজুর, মৌলানাদের মতো লোকজনকে দেখা যাচ্ছে।

Related Articles

Back to top button