Press "Enter" to skip to content

এত সাংসদ-বিধায়ক, এরপরেও আমরা মানুষের পাশে দাঁড়াতে না পারলে ইস্তফা দেওয়া উচিৎঃ অর্জুন সিং

শেয়ার করুন -

ব্যারাকপুরঃ রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা হতেই চারিদিক থেকে হিংসার খবর সামনে আসছে। সোমবার বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেছিলেন, ফল ঘোষণার ২৪ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই বিজেপির ৬ জন কর্মী খুন হয়েছেন। এরপর কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের তরফ থেকে রাজ্য সরকারের কাছে ভোট পরবর্তী হিংসা নিয়ে রিপোর্ট তলব করা হয়।

আরেকদিকে, বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডাও বাংলায় বিজেপির কর্মীদের উপর চলা হিংসা নিয়ে রাজ্যে আসতে চলেছেন। আর এরই মধ্যে বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন ব্যারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংহ। তিনি বলেন, আমরা জনপ্রতিনিধিরা যদি এই দুঃসময়ে মানুষের পাশে দাঁড়াতে না পারি, তাহলে আমাদের ইস্তফা দিয়ে দেওয়া উচিৎ।

রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে বিজেপির কর্মীদের উপর হামলার খবর প্রকাশ্যে এসেছে। এছাড়াও ব্যারাকপুর লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত শ্যামনগরে এক বৃদ্ধার মৃত্যু নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন অর্জুন সিংহ। বিজেপি সাংসদ বলেন, গোটা রাজ্যে বিজেপির কর্মী-সমর্থকদের মারা হচ্ছে। ফল প্রকাশ হওয়ার পর চারিদিকে হিংসা ছড়িয়ে পড়েছে। আমরা ১৮ জন সাংসদ আর ৭৭ জন বিধায়ক আছি। এই অবস্থায় আমরা মানুষের পাশে দাঁড়াতে পারছি না।

এরপর বিজেপির সাংসদ অর্জুন সিংহ বলেন, আমার হিসেবে এত জনপ্রিতিনিধি থাকার পরেও আমরা যদি মানুষকে নিরাপত্তা না দিতে পারি, তাহলে আমাদের সবার উচিৎ পদত্যাগ করা। এরাজ্যে গণতন্ত্র নেই। চারিদিকে সন্ত্রাস ছড়িয়েছে।

প্রসঙ্গত, সোমবার তৃণমূল-বিজেপির সংঘর্ষের কারণে শ্যামনগরে এক বৃদ্ধার মৃত্যু হয়েছে। এই ঘটনায় অভিযুক্ত থাকার অপরাধে দুজন তৃণমূল কর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।