Press "Enter" to skip to content

কোভিডে মৃত কর্মীদের ২ বছরের বেতন আর মাতৃ-পিতৃহারা সন্তানদের পড়াশোনার খরচ বহন করবে বোরোসিল

শেয়ার করুন -

নয়া দিল্লীঃ করোনার কারণে গোটা দেশে বেসামাল পরিস্থিতি। দ্বিতীয় ঢেউ সামলে না উঠতে পারা ভারতে তৃতীয় ঢেউও আছড়ে পড়তে পারে বলে মত গবেষকদের। কোনওমতে সঙ্কট যদি কেটেও যায় দুই এক বছরে, তাহলে এই মহামারীর কারণে হয়ে যাওয়া ক্ষতির ক্ষতিপূরণ কীভাবে হবে সেই নিয়ে চিন্তায় দেশের তাবড় তাবড় সংস্থাগুলি। আর এই সঙ্কটের মধ্যে নিজেদের লাভ-লসের হিসেব না কষে মানবিক সিদ্ধান্ত নিল দেশীয় কোম্পানি ‘বোরোসিল।”

কোম্পানির তরফ থেকে জানানো হয়েছে যে, তাঁদের কোনও কর্মী করোনায় আক্রান্ত হলে প্রয়াত হলে, তাঁদের পরিবারের পাশে দাঁড়াবে বোরোসিল। কোম্পানি জানিয়েছে যে, মৃত কর্মীর পরিবার যতদিন না আর্থিক ধাক্কা কাটিয়ে উঠবে, ততদিন তাঁদের আর্থিক সহয়তা করবে সংস্থা। এছাড়াও মৃত কর্মীর সন্তানরা স্নাতকোত্তীর্ণ না হওয়া পর্যন্ত, তাঁদের পড়াশোনার যাবতীয় খরচ কোম্পানিই চালাবে।

বোরোসিল লিমিটেডের ম্যানেজিং ডিরেক্টর শ্রীবর খেরুকা একটি বিবৃতি জারি করে জানান, ‘কোম্পানির কোনও কর্মী যদি দুর্ভাগ্যবশত করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যান, তাহলে তিনি যা বেতন পেতেন তা দুই বছর পর্যন্ত তাঁর পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হবে। এছাড়াও মৃত কর্মীর সন্তানরা স্নাতক না হওয়া পর্যন্ত তাঁদের পড়াশোনার সমস্ত খরচ কোম্পানি দেবে।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, ‘প্রিয়জনকে হারানোর ক্ষতি কোনও মতেই পূরণ করা সম্ভব নয়। কিন্তু প্রাথমিক ধাক্কা কাটিয়ে ওঠার জন্য এবং নতুন করে জীবন যাতে শুরু করতে পারে শোকার্ত পরিবার, তাতে কিছুটা সাহায্য আমরা করব।” বোরোসিল কোম্পানির এই সিদ্ধান্তে একদিকে যেমন বেজায় খুশি সংস্থার কর্মীরা। তেমনই আরেকদিকে, ভারত জুড়ে সংস্থার এই সিদ্ধান্তের প্রশংসা হচ্ছে।