Press "Enter" to skip to content

ঈদে জঙ্গিদের আঁতুড়ঘর পাকিস্তানকে মিষ্টি না দিলেও বাংলাদেশের সাথে আনন্দ ভাগ করে নিলো ভারত

শেয়ার করুন -

নয়া দিল্লীঃ নিষেধাজ্ঞা আর করোনার সংক্রমণের বিপদের মধ্যে কাশ্মীর থেকে কন্যাকুমারী পর্যন্ত আনন্দময় ঈদ পালিত হচ্ছে। আর এই খুশির দিন গুলোতে ভারতীয় সেনার (Indian Army) প্রচেষ্টা থাকে যে, প্রতিবেশী দেশ পাকিস্তানের (Pakistan) সাথে এই খুশি গুলো একটু ভাগ করে নেওয়া। কিন্তু এবার আর এমনটা হয়নি। সীমান্তের সুরক্ষার দায়িত্বে থাকা বিএসএফ (BSF) এর আধিকারিকরা জানান, এবার তাঁরা পাকিস্তানকে মিষ্টি দেবে না। দুই দেশের মধ্যে বর্তমান পরিস্থিতি দেখেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

যদিও ভারতীয় সেনা আগের বছর গুলোর মতো এবারও প্রতিবেশী দেশ বাংলাদেশের সাথে মিষ্টির আদান প্রদান করেছে। আধিকারিকরা জানান দেশে পশ্চিম সীমান্ত থেকে জঙ্গি গতিবিধির ঘটনা লাগাতার জারি আছে আর এই জন্য জম্মু থেকে গুজরাট পর্যন্ত ভারত-পাকিস্তান আন্তর্জাতিক সীমান্তের কোন জায়গাতেই মিষ্টির আদান প্রদান হয়নি।

পাকিস্তান গত বছর দীপাবলির দিনেও যুদ্ধ বিরতি লঙ্ঘন করেছিল। জম্মু কাশ্মীরে এলওসির কাছে রাজৌরি জেলার সুন্দরবন সেক্টরে ফায়ারিং করেছিল পাকিস্তান এরপর দীপাবলি আর গণতন্ত্র দিবসে চারতিয় সেনা পাকিস্তানি রেঞ্জার্সদের মিষ্টি দেওয়ার জন্য বার্তা পাঠিয়েছিল। কিন্তু সীমান্তের ওপার থেকে কোন জবাব আসেনি।

পাকিস্তানি রেঞ্জার্সরা বিএসএফকে জানিয়ে দিয়েছিল যে তাঁরা এবার দীপাবলির মিষ্টি নেবে না। এরপর ভারতও জম্মু কাশ্মীর আন্তর্জাতিক বর্ডার আর এলওসি দিয়ে বিএসএফ দ্বারা কোন মিষ্টি পাঠিয়েছিল না।