নতুন খবরপশ্চিমবঙ্গভারতবর্ষরাজনীতি

একটি সংস্থাকেই বাঁচাচ্ছেন কেন? বিদ্যুৎ বণ্টনের প্রক্রিয়া নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী চিঠি কেন্দ্রের

কলকাতাঃ কেন্দ্রীয় বিদ্যুৎমন্ত্রী রাজকুমার সিংহ মমতা ব্যানার্জীকে একটি চিঠি পাঠিয়ে জানতে চেয়েছেন যে, কলকাতায় বিদ্যুৎ বণ্টনে বেসরকারি একটি সংস্থার একচেটিয়া ব্যবসাকে কেন তিনি বাঁচাতে চাইছেন? কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর পাঠানো চিঠিতে ফের তোলপাড় হতে চলেছে রাজ্য রাজনীতি। একদিকে, তৃণমূল কংগ্রেস যেমন গ্যাস, তেলের দাম নিয়ে বারবার সরব হয়। তখন রাজ্যের বিরোধী দলও বিদ্যুতের দাম নিয়ে বারবার সরব হয়ে চলেছে। আর ভবানীপুরের উপনির্বাচনের আগে কেন্দ্রের তরফ থেকে পাঠানো এই চিঠিকেই হাতিয়ার করতে পারে বিজেপি।

মুখ্যমন্ত্রীকে লেখা চিঠিতে কেন্দ্রীয় বিদ্যুৎমন্ত্রী রাজকুমার সিংহ জানিয়েছেন, গোটা দেশে চড়া হারে বিদ্যুতের মাসুল করা সংস্থাগুলির মধ্যে অন্যতম হল কলকাতায় বিদ্যুৎ সরবরাহকারী সংস্থা। তাঁরা কলকাতায় একচেটিয়া কারবার করে চলেছে। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জানিয়েছেন, কেন্দ্র বিদ্যুৎ আইনে সংশোধন করে বিদ্যুৎ বণ্টন প্রক্রিয়াতে প্রতিযোগিতা আনতে চায়। এরফলে যেই কোম্পানি সবথেকে কমে এবং ভালো পরিষেবা দেবে, গ্রাহকরা তাঁদের কাছেই যাবে। এই আইনে কলকাতায় একচেটিয়া ব্যবসা করা সংস্থাও প্রতিযোগতার মধ্যে পড়বে। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি লিখে বলেছেন, ‘আপনি কেন ওই বেসরকারি সংস্থাকে বিদ্যুৎ বণ্টন প্রতিযোগিতা থেকে বাঁচাতে চাইছেন, সেটা স্পষ্ট নয়।”

উল্লেখ্য, গ্যাস-তেলের মতোই বিদ্যুতের দামও আকাশ ছুঁয়েছে। করোনা কালে গ্রাহকদের থেকে বেশি বিদ্যুৎ বিল নেওয়ার অভিযোগ উঠেছিল কলকাতার ওই বেসরকারি সংস্থার উপর। পাশাপাশি রাজ্যে নতুন করে বিদ্যুতের গ্রাহকেরা দাবি তুলছেন যে, এবার থেকে তিন মাসে একবার না, প্রতি মাসেই নেওয়া হোক মিটার রিডিং। এরফলে অতিরিক্ত বিস্যুতের মাশুল দেওয়ার থেকে রক্ষা পাবেন তাঁরা।

অন্যদিকে, কেন্দ্র বিদ্যুৎ আইনে সংশোধন করার রাস্তায় হাঁটছে। নতুন আইনে গ্রাহকেরা নিজেদের ইচ্ছে মতো বিদ্যুৎ বণ্টনকারী সংস্থাগুলি পাল্টাতে পারবেন। একাধিক বেসরকারি সংস্থা যদি বিদ্যুৎ বণ্টন প্রতিযোগিতায় নামে, তাহলে বিদ্যুতের দাম কমবে বলে মত কেন্দ্রের।

Related Articles

Back to top button