আন্তর্জাতিকনতুন খবর

বন্ধুত্বের আড়ালে পাকিস্তানের সঙ্গে বড় প্রতারণা করল চালাক চীন, অশ্রু জল ফেলছে পাক সেনা

নয়া দিল্লিঃ চীনের (China) সামগ্রীর কোনও গ্যারান্টি নেই। যতক্ষণ চলবে, ততক্ষণ ঠিক। কতক্ষণ চলবে সেটাও বলা দায়। আর একবার খারাপ হলে, ভাঙাচুরা দরে বিক্রিও হতে চায় না। আর এরকমই কিছু অত্যাধুনিক সৈন্য হাতিয়ার পাকিস্তানকে (Pakistan) পাঠিয়েছিল চীন। যা এখন পাকিস্তানি সেনার সবথেকে বড় মাথা ব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। পাকিস্তানি, সেনাকে যেই হাতিয়ার আর সৈন্য উপকরণগুলো পাঠিয়েছিল চীন, তা এখন সম্পূর্ণ ভাবে বেকার হয়ে গিয়েছে। চীনের এই প্রতারণার কারণে দুই দেশের সম্পর্কেও কিছুটা তিক্ততা এসেছে।

পাকিস্তান নিজেদের সৈন্য ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য পদক্ষেপ নিচ্ছে। আর সেই কারণে তাঁরা চীনের থেকে অটোম্যাটিক হাওয়াই বাহন (Drone) কিনছে। চীনের চেংডু এয়ারক্র্যাফট ইন্ডাট্রি পাকিস্তানকে তিনটি সশস্ত্র ড্রোন ২০২১-র জানুয়ারি মাসে দিয়েছিল। পাকিস্তানি বায়ুসেনা সেই ড্রোনগুলিকে নিজেদের কম্যান্ডে নিযুক্তও করেছিল। কিন্তু কিছুদিন পর থেকেই ড্রোনে নানান সমস্যা ধরা পড়ে। আর এই কারণে বায়ুসেনা সেই ড্রোনগুলোর সঙ্গে কাজ করা বন্ধ করে দেয়। মিডিয়া রিপোর্টস অনুযায়ী, চীনের সঙ্গে এই ড্রোন চুক্তি পাকিস্তানের কাছে একটি বিভীষিকার মতো হয়ে দাঁড়িয়েছে।

ওই ড্রোনগুলো বিক্রি করা চাইনা ন্যাশনাল অ্যারো-টেকনোলজি ইম্পোর্ট অ্যান্ড এক্সপোর্ট কর্পোরেশন এই বিষয়ে মুখে কুলুপ এঁটেছে। এরপর পাকিস্তানি আধিকারিকরা ড্রোনগুলোকে ঠিক করার জন্য চীনা ইঞ্জিনিয়ারদের পাঠানোর দাবি করেন। যদিও, চীন এখনও এই বিষয়ে না কোনও প্রতিক্রিয়া দিয়েছে, আর না কোনও ইঞ্জিনিয়ার পাঠিয়েছে।

রিপোর্ট অনুযায়ী, চীনের তরফ থেকে যেই ড্রোনগুলোকে পাকিস্তানে পাঠানো হয়েছিল, সেগুলোর কল-কবজা একদম বেকার আর ব্যবহারের অনুপযোগী। এছাড়াও সবথেকে বড় সমস্যা হল, ড্রোনগুলো থেকে জ্বালানী নিঃসৃত হয়েই চলেছে।

Related Articles

Back to top button