আন্তর্জাতিকনতুন খবর

উইঘুর শিবিরে শুয়োর পালন করছে চীন, শুক্রবার জোর করে খাওয়ানো হচ্ছে সেই মাংস

নয়া দিল্লীঃ চীনে (China) উইঘুর (Uyghurs) মুসলিমদের সাথে যা হচ্ছে, সেটা এখন গোটা বিশ্ব দেখতে পারছে। এখন নতুন রিপোর্ট অনুযায়ী, চীনে উইঘুর মুসলিমদের ‘রি-এডুকেশন” শিবিরে প্রতি শুক্রবার করে জোর করে খাওয়ানো হচ্ছে শুয়োরের মাংস। চীনের সরকার দ্বারা করা এই অত্যাচারের শিকার হওয়া এক মহিলা সেরাগুল সৌতবে এই কথা জানান।

আল জাজিরা নিউজ চ্যানেলে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে সেরাগুল বলেন, ‘প্রতি শুক্রবার আমাদের শুয়োরের মাংস খাওয়ার জন্য বাধ্য করা হচ্ছে।” তিনি বলেন, ওঁরা ইচ্ছে করে এইদিনটিকে নির্বাচিত করেছে, কারণ ওঁরা জানে যে মুসলিমদের কাছে শুক্রবার অত্যন্ত পবিত্র দিন। সেরাগুল এও বলেন যে, যদি কেউ শুয়োরের মাংস খেতে অস্বীকার করে, তাকে কঠোর দণ্ডে দণ্ডিত করা হয়।

সেরাগুল একজন ডাক্তার আর শিক্ষিকা, উনি বর্তমানে সুইডেনে বসবাস করছেন। তিনি জানান, আমি মনে করি আমি একজন আলাদা ব্যক্তি। আমার চারদিকে অন্ধকারচ্ছন্ন হয়ে পড়ে। এই ঘটনা স্বীকার করা বাস্তবে অনেক কঠিন।

এরকমই এক অত্যাচারিত উইঘুর মহিলা যার নাম জুমরেত দাউত, ওনাকে ২০১৮ এর মার মাসে উরুমকি থেকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। তিনি জানান, দুমাস পর্যন্ত আধিকারিকরা ওনাকে পাকিস্তানের সাথে লিঙ্ক থাকার জন্য জিজ্ঞাসাবাদ চালান। প্রসঙ্গত, ওনার স্বামী পাকিস্তানের বাসিন্দা। উনি জানান, আধিকারিকরা ওনাকে বারবার জিজ্ঞাসা করত যে, ওনার কতজন সন্তান আছে, আর ওনারা সবাই কোরআন পড়েছে কিনা?

তিনি জানান, একবার ওনাকে শৌচাগারে যাওয়ার অনুমতি নেওয়ার জন্য শিবিরের পুরুষ আধিকারিকের পা ধরে ভিক্ষা চাইতে হয়েছিল। ওনাকে হাতকড়া পরিয়ে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়, আর পুরুষ আধিকারিকরা শৌচাগার পর্যন্ত ওনার পিছু নেয়।

শিবিরে উইঘুর মুসলিমদের দেওয়া শুয়োরের মাংস নিয়ে কথা বলার সময় তিনি বলেন, আপনাকে যখন শিবিরে নিয়ে যাওয়া হয়, তখন আপনি নিজে এটা নির্ধারণ করতে পারবেন না যে, আপনি কি খাবেন আর না খাবেন। জীবিত থাকার জন্য তখন আমাদের যা দেওয়া হত, আমরা তাই খেতাম।

Related Articles

Back to top button