Press "Enter" to skip to content

পাকিস্তানকে ৪৭০০ কোটি টাকার খারাপ ডিফেন্স সিস্টেম বিক্রি করল চীন! ঘোর বিপাকে ইমরান সরকার

শেয়ার করুন -

নয়া দিল্লীঃ করোনার ভ্যাকসিন হোক, টাকা হোক আর হাতিয়ার পাকিস্তান তাঁদের সমস্ত প্রয়োজনের জন্য চীনের উপর নির্ভরশীল। কিন্তু চিটিংবাজ চীন থেক দেশে যাওয়া প্রতিটি সামগ্রীই এখন পাকিস্তানের মাথা ব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। কারণ চীনের সামগ্রী হয় নকল, নাহলে কোনও কাজের না।

পাকিস্তান চীনের থেকে ৯টি LY-80 এয়ার ডিফেন্স সিস্টেম কিনেছিল, যেটা পাকিস্তান পরীক্ষা করার মাত্রই খারব বলে বিবেচিত হয়েছে। এবার পাকিস্তান ওই এয়ার ডিফেন্স সিস্টেম গুলোকে ঠিক করে দেওয়ার জন্য চীনের শরণাপন্ন হয়েছে। পাকিস্তান চীনকে যেই লিস্ট দিয়েছে, সেটি অনুযায়ী এই সিস্টেমে ৩৮৮টি গড়বর আছে।

ভারতের শক্তিশালী বায়ুসেনার বিরুদ্ধে নিজেদের মজবুত করার জন্য পাকিস্তান চীনের সঙ্গে ২০১৪ সালে ৯টি এয়ার ডিফেন্স সিস্টেমের চুক্তি করেছিল। চীন এই ডিফেন্স সিস্টেম গুলো ২০১১ সালে রাশিয়ার একটি কোম্পানির সহযোগিতায় বানিয়েছিল।

মিডিয়াম রেঞ্জের এই এয়ার ডিফেন্স সিস্টেম চীন HQ-16 নাম দিয়েছিল, আর পাকিস্তানকে সেটির এক্সপোর্ট ভার্সন LY-80 LOMAD নামে বিক্রি করেছিল। এর মধ্যে তিনটি ২০১৬ সালে আর বাকি ছয়টি ২০১৯ সালে পাকিস্তানের হাতে তুলে দেয় চীন। প্রায় ৪ হাজার ৭০০ কোটি টাকার এই এয়ার ডিফেন্স সিস্টেম ২০১৯ সালে ভারতীয় বায়ুসেনা দ্বারা পাকিস্তানের বালাকোটে এয়ার স্ট্রাইকের পর ভারতীয় সীমান্তের পাশে লাগিয়েছিল ইমরান খান।

এই এয়ার ডিফেন্স সিস্টেমের রেঞ্জ ৪০ থেকে ৭০ কিমি পর্যন্ত আর ১৫ মিটার থেকে ১৮ কিমি উচ্চতা পর্যন্ত কাজ করতে সক্ষম। এর র‍্যাডার ১৪০ কিমি দূর থেকেই নিজের নিশানায় নজর রাখতে পারে আর তাঁর পিছুও নিতে পারে। ৮৫ কিমি দূর থেকে এই সিস্টেম নিজের লক্ষ্যবস্তুর উপর নিশানা লাগানোর প্রস্তুতি নিতে পারে। কিন্তু এখন এগুলো প্রায় বেকার। কারণ চীন পাকিস্তানের কাছে যেই সিস্টেম পাঠিয়েছে, তাঁর মধ্যে ৩৮৮টি গলদ আছে।