আন্তর্জাতিকনতুন খবর

নতুন ব্যবস্যা চীনের, উইঘুর মুসলিমদের লিভার-কিডনি বিক্রি করে কামাচ্ছে কোটি কোটি টাকা

নয়া দিল্লিঃ চীনে (China) উইঘুর মুসলিমদের (Uyghurs) উপর অত্যাচারের এক ভয়াবহ খবর সামনে এসেছে। একটি রিপোর্টে দাবি করা হয়েছে যে, চীন উইঘুর মুসলিমদের দেশের অঙ্গ প্রত্যঙ্গের কালোবাজারি করে কোটি কোটি টাকা কামাচ্ছে। সংবাদ সংস্থা ‘হেরাল্ড সান”-র একটি রিপোর্ট অনুযায়ী, প্রায় দেড় লক্ষ উইঘুর মুসলিমদের জোর জবরদস্তি কয়েদ করে রেখেছে চীন। আর বন্দি অবস্থায় থাকা উইঘুর মুসলিমদের শরীরের গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ বিশেষ কিডনি, লিভার বের করে নিয়ে কালোবাজারি করছে তাঁরা।

অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নের মর্নিং ট্যাবলয়েড রিপোর্টে বলা হয়েছে যে, চীন কীভাবে উইঘুর মুসলিমদের লিভার বিক্রি করে ১ কোটি ২০ লক্ষ টাকা পাচ্ছে আর তাঁর এই করেই বার্ষিক ৭৫ বিলিয়ন ডলারের আশেপাশে কামাই করছে। উল্লেখ্য, এটাই প্রথমবার না যে চীনে ডিটেনশন সেন্টার থেকে মানব অঙ্গের কালোবাজারি করার খবর প্রকাশ্যে এসেছে। এর আগেও চীনের বিরুদ্ধে এমন অজস্র অভিযোগ উঠেছিল।

চীন শিনজিয়াং প্রান্তে উইঘুর জনসংখ্যার উপর নজরদারি আর নিয়ন্ত্রণের জন্য অভ্যন্তরীণ এবং বাহ্যিক প্রক্রিয়া তৈরি করেছে। সেখানে পরিচালকদের অন্তর্ভুক্ত করার জন্য একটি নতুন ব্যবস্থা তৈরি করা হয়েছে যারা কমপক্ষে ১০টি উইঘুর পরিবারের তত্ত্বাবধানের জন্য দায়ী থাকবেন। এভাবেই চীন তিব্বত নিয়েও কড়া নজর রাখছে। তাঁদের উপর CCTV ক্যামেরা দিয়ে সবসময় নজর রাখা হচ্ছে। তিব্বতের মানুষদের নিজের এলাকা ছেড়ে বের হওয়ারও অনুমতি দেয়নি জিনপিং প্রশাসন। শিনজিয়াং আর তিব্বত দুই প্রান্তেই মানবাধিকার হননের অভিযোগ উঠেছে চীনের বিরুদ্ধে।

অন্যদিকে, দ্য সানডে মর্নিং হেরান্ডে একটি প্রতিবেদনে এরিক হ্যাগশ লিখেছেন, তিব্বত আর শিনজিয়াং প্রান্তে মানুষকে নজরবন্দি করে রাখার ঘটনা উদ্বেগ বাড়াচ্ছে। চীন তাঁদের সংস্কৃতি এখানে আমদানি করতে চায়, যাতে উইঘুর ও তিব্বতিদের ধর্মীয় পরিচয় শেষ করা যায়। মিডিয়া রিপোর্ট অনুযায়ী, চীনে সংখ্যালঘুদের ধার্মিক স্থলগুলোকেও একের পর কে ধ্বংস করে দেওয়া হচ্ছে।

Related Articles

Back to top button