নতুন খবরভারতবর্ষ

লাদাখ সীমান্তে জওয়ান মোতায়েন করাই কাল হল চীনের, বাধ্য হয়ে নিতে চলেছে বড় পদক্ষেপ

নয়া দিল্লিঃ গত বছর গালওয়ান (Galwan) উপত্যকায় ভারত (India) আর চীনা ফৌজের (People’s Liberation Army) মধ্যে হওয়া সংঘর্ষ আর উত্তেজনার পর দুই দেশে জওয়ানরাই পূর্ব লাদাখ (Ladakh) থেকে শুরু করে নর্থ ইস্টের ভারত-চীন সীমান্তে (India-China Border) পাহারায় রয়েছে। হিমালয়ের (Himalayas) ওই এলাকায় এমন কিছু পোস্ট রয়েছে, যা অনেক উচ্চতায় অবস্থিত আর সিয়াচেনের মতো পরিস্থিতি। ভারতীয় জওয়ানরা (Indian Army) এই বিষম পরিস্থিতির পরেও চীনা সেনাদের অবৈধ অনুপ্রবেশ রোখার জন্য সেখানে মোতায়েন রয়েছেন। কিন্তু চীনা সেনার সেখানে থাকা তাঁদেরই কাল হয়ে দাঁড়াচ্ছে।

FIle Pic

সূত্র থেকে পাওয়া খবর অনুযায়ী, চীন ওই দুর্গম এলাকায় নিজেদের জওয়ান মোতায়েন করেছে ঠিকই, কিন্তু চীনা জওয়ানরা এমন পরিস্থিতিতে থাকার জন্য প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত নয়। হাড় কাঁপানো ঠাণ্ডা এবং অন্যান্য শারীরিক সমস্যার কারণে ওই এলাকায় বহু চীনা জওয়ান প্রাণ হারিয়েছে। যার কারণে, চীনের কপালে চিন্তার ভাঁজ ও দেখা দিয়েছে।

হিমালয়ের এই সীমান্তে কিছু এমনও পোস্ট রয়েছে, যেখানে অত্যাধিক উচ্চতা থাকার কারণে অক্সিজেনের (Oxygen) অনেক অভাব। আর এর কারণে জওয়ানদের নিঃশ্বাস নিতে চরম অসুবিধের মুখে পড়তে হয়। চীন এবার ওই এলাকায় মোতায়েন নিজেদের জওয়ানের জন্য বিশেষ রূপে বানানো পোর্টেবেল অকিসজেন সাপ্লাই ডিভাইস দিচ্ছে। ওই ডিভাইস দিয়েই এবার চীনা জওয়ানরা দুর্গম এলাকায় নিঃশ্বাস নেবে।

File Pic

গালওয়ানে ভারত-চীন সংঘর্ষের পর, চীন সীমান্তের পাশে হাতিয়ার আর মিসাইল মোতায়েনের পাশাপাশি সেনা সংখ্যাও বাড়িয়ে দিয়েছে। গত বছর ১৫ জুনে দুই দেশের সংঘর্ষে সীমান্তে ২০ জন ভারতীয় জওয়ান প্রাণ হারিয়েছিলেন। তবে, চীনের কতজন জওয়ান মৃত্যুর মুখে ঢলে পড়েছিল, তা এখনও প্রকাশ করেনি বেজিং।

File Pic

চীনকে যোগ্য জবাব দেওয়ার জন্য ভারতও সীমান্তে M777 গান থেকে শুরু করে মিসাইল, তোপ আর ট্যাঙ্ক মোতায়েন করেছে। এমনকি সীমান্তে সেনার সংখ্যাও বাড়িয়ে দিয়েছে ভারত। তবে, সীমান্তে এমন বিষম পরিস্থিতির মোকাবিলায় ভারতীয় জওয়ানরা যতটা সক্ষম, চীনের জওয়ানরা ততটা নয়, এই কারণে তাঁদের প্রচুর সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে।

Related Articles

Back to top button