Press "Enter" to skip to content

ধর্ষণকারীদের এনকাউন্টার করা ঠিক হয়নি, আইন হাতে তোলা উচিত নয়ঃ মমতা ব্যানার্জী।

শেয়ার করুন -

তেলেঙ্গানার হায়দ্রাবাদে (Hyderabad) মহিলা পশু চিকিৎসক ডঃ রেড্ডিকে ধর্ষণ করে জ্যান্ত জ্বালিয়ে দেওয়ার ঘটনার পর ক্ষোভে ফুঁসছিল গোটা দেশ। দোষীদের শীঘ্র এবং কড়া শাস্তির দাবিতে দেশের বিভিন্ন প্রান্তের মানুষ রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ দেখিয়েছিল। এমনকি বাদ যায়নি সংসদও। সংসদে যখন হায়দ্রাবাদের গণ ধর্ষণ কাণ্ড নিয়ে চর্চা হচ্ছিল, তখন অনেক সাংসদই ধর্ষকদের মৃত্যু দণ্ড দেওয়ার দাবি জানিয়েছিল। এমনকি সমাজবাদী পার্টি থেকে রাজ্যসভার সাংসদ জয়া বচ্চন ধর্ষকদের ভিড়ের হাতে তুলে দেওয়ার দাবি করেছিলেন। আর এরপর কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রাজনাথ সিং ধর্ষকদের বিরুদ্ধে কড়া আইন আনার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন।

এরপর আজ সকালে হায়দ্রাবাদ গণ ধর্ষণ কাণ্ডে অভিযুক্তদের নিয়ে ঘটনাস্থলে ক্রাইম সিন রিক্রিয়েট করতে যায় হায়দ্রাবাদ পুলিশ। সেখানে সুযোগ বুঝে পুলিশের হাতিয়ার কেড়ে নিয়ে পালানোর চেষ্টা করেছিল অভিযুক্তেরা। পুলিশ প্রথমে হুঁশিয়ারি দিলেও থামেনি তাঁরা। পরে বাধ্য হয়ে এনকাউন্টার করে খতম করা হয় চার অভিযুক্তকে। পুলিশের এই কাণ্ডের পর গোটা দেশ জুড়ে হায়দ্রাবাদ পুলিশের প্রশংসা হচ্ছে। কিন্তু দেশের অনেকেই আবার পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন।

বিজেপির নেতা চন্দ্র কুমার বোস বলেছেন, অভিযুক্তেরা এখনো দোষী প্রমাণিত হয়নি। তাহলে তাঁর আগে পুলিশ এই পদক্ষেপ নিলো কেন? আরেকদিকে সিপিএম নেতা সীতারাম ইয়েচুরিও পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলে এই এনকাউন্টারকে বেআইনি বলতে চেয়েছেন। দেশবাসীর মুখে এখন একটাই কথা, সেটা হল আইনের মাধ্যমে সাজা দিতে প্রায় ১০ বছর লেগে যেতে পারে। নির্ভয়ার দোষীরা ৭ বছর পরেও সাজা পায়নি। তাই পুলিশ উচিৎ পদক্ষেপ নিয়েছে।

আর এবার আজকের এনকাউন্টার নিয়ে মুখ খুললেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা ব্যানার্জী (Mamata Banerjee)। আজ কলকাতার মেয়ো রোডে সংহতি দিবস পালন করছে শাসক দল তৃণমূল। সেখানে উপস্থিত আছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী। ভাষণের শুরুতেই ধর্ষকদের কঠোর সাজা নিয়ে কথা বলেন তিনি। তিনি বলেন, সবকিছু আইন মোতাবিক হওয়া উচিৎ। ধর্ষকদের সাজা আইন মাফিক হোক বলে জানান তিনি। তিনি বলেন দ্রুত চার্জশিট দাখিল করে সাজা দেওয়া উচিৎ ধর্ষকদের। এদিন তিনি মালদা ধর্ষণ নিয়ে বলেন, পুলিশকে তদন্ত করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। রাজ্যে ৮৫ টি ফাস্টট্র্যাক আদালত রয়েছে। দোষীদের সাজা আইন মাফিকই হবে। হায়দ্রাবাদ এনকাউন্টার নিয়ে মমতা ব্যানার্জী বলেন, আইন হাতে তুলে নিয়ে নয়, কড়া আইনের মাধ্যমেই ধর্ষকদের সাজা দেওয়া উচিত।