Press "Enter" to skip to content

মুসলিম মহিলাদের সৌন্দর্যের প্রশংসা করলেই জেলে যেতে হবে পুরুষদের! চালু হল আজব আইন

শেয়ার করুন -

নয়া দিল্লীঃ সুন্দর মহিলাদের প্রশংসা করলে অথবা খাবার এবং ডেটের জন্য জিজ্ঞাসা করলে সমস্যায় পড়তে হবে পুরুষদের। এমনকি মহিলাদের সাথে ফ্লার্ট করা, কফি খাওয়ার জন্য আমন্ত্রণ করলে জেলে যেতে হতে পারে পুরুষদের। হ্যাঁ! ঠিকই শুনেছে। এমনই আজব আইন চালু হচ্ছে সৌদি আরবে।

খালিজ টাইমসে প্রকাশিত একটি রিপোর্ট অনুযায়ী, যদি কোম্পানিতে কাজ করা মুসলিম মহিলাদের সহযোগী পুরুষ কর্মী অথবা আধিকারিকরা মহিলাদের প্রশংসা করে, কফি অথবা ডিনারের জন্য আমন্ত্রণ জানায় অথবা ফ্লার্ট করে তাহলে সেই পুরুষকে জেলে যেতে হবে। আরবের এই নতুন আইন অনুযায়ী, ফ্লার্ট করা বেআইনি আর অপরাধ। এই আইন অবজ্ঞা করলে জেলে যেতে হবে।

রিপোর্ট অনুযায়ী, মহিলাদের উপহাস অথবা এমন কোন পদক্ষেপ নেওয়া যাতে মহিলাদের সন্মান ক্ষুণ্ণ হয় সেটা আরবের সংস্কৃতির বিরুদ্ধে। ১৯৮৭ সালে কেন্দ্রীয় আইন অনুযায়ী, কোন মহিলাকে অপমানজনক শব্দ বলা অথবা অসন্মানজনক ব্যবহার করা আইন বিরোধী। এছাড়াও সোশ্যাল মিডিয়ায় মাধ্যমে মহিলাকে অপমান করে কোন ম্যাসেজ অথবা পোস্ট করা অপরাধ বলে গণ্য হবে।

আরবের পিনাল কোড এর অ্যার্টিক্যাল ৩৫৯ অনুযায়ী, মহিলাদের অসন্মান করা ব্যাক্তিদের এক বছর অথবা তাঁর থেকে বেশি দিনের জন্য সাজা দেওয়া হতে পারে। এছাড়াও ১০ হাজার দিরহাম কিম্বা দুটোই দেওয়া হতে পারে। আর যদি এই অপরাধ কোন বিদেশী নাগরিক করে, তাহলে তাঁর সাজা পূর্ণ হওয়ার পর তাঁকে দেশ থেকে বের করে দেওয়া হবে।

উল্লেখ্য, মহিলাদের সন্মানের কথা মাথায় রেখে বিশ্বের প্রতিটি দেশেই শক্ত আইন আছে। আজকের দিন দেখে ওই আইনে কিছু বদলও করা হয়েছে। সৌদি আরবে এখন মহিলাদের গাড়ি চালানো, খেলায় অংশ নেওয়া এমনকি চাকরীর পর্যন্ত অনুমতি দেওয়া হয়েছে। আর এই কারণে মহিলাদের কথা মাথায় রেখে বানানো এই আইন নিয়ে চর্চা শুরু হয়েছে।