Press "Enter" to skip to content

যখন আমাদের এক থাকার দরকার, তখন রাজনীতি হচ্ছে! চীন ইস্যুতে রাহুল গান্ধীকে কটাক্ষ কংগ্রেস নেতা মিলিন্দ দেওড়ার

শেয়ার করুন -

নয়া দিল্লীঃ  চীন নিয়ে কংগ্রেস (Congress) নেতা মিলিন্দ দেওড়া (Milind Deora) নিজের দলকেই নিশানায় নিলেন। উনি ট্যুইটারে লেখেন, যখন দেশের একজোট হয়ে থাকার কথা, তখন রাজনীতি চলছে। আর এই রাজনীতির কারণে আমরা গোটা বিশ্বের সামনে হাসির পাত্র হয়ে উঠেছি। দেওড়া বলেন, ‘এটা খুবই দুর্ভাগ্যজনক যে, যখন চীনের অতিক্রমণের বিরুদ্ধে দেশের আওয়াজ এক হওয়া দরকার, তখন তাঁর বদলে রাজনীতির কাঁদা ছোঁড়াছুড়ি হচ্ছে। আর এই কারণে আমরা গোটা বিশ্বের সামনে তামাশা হয়ে গেছি। চীনের বিরুদ্ধে আমাদের একজোট হওয়ার দরকার।”

এর আগে এনসিপি প্রধান শরদ পাওয়ারও চীন নিয়ে কংগ্রেসকে আয়না দেখিয়েছে। শরদ পাওয়ার বলেছেন, রাষ্ট্রীয় সুরক্ষা নিয়ে রাজনীতি করা উচিৎ না। উনি বলেন, ১৯৬২ তে কি হয়েছিল, সেটা ভুলে গেলে হবে না। চীন আমাদের ৪৫ হাজার বর্গকিমি এলাকা দখল করে ছিয়েছিল। পাওয়ার বলেন, ‘বর্তমানে আমি জানিনা যে চীন আমাদের কোন জমি দখল করেছে কি না, কিন্তু এই নিয়ে চর্চা করার সময় আপনাকে পুরনো কথা মনে রাখতে হবে।”

প্রসঙ্গত, শরদ পাওয়ার এই বয়ান কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীকে উদ্দেশ্য করে বলেছিলেন। রাহুল গান্ধী চীন ইস্যু নিয়ে বরাবর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর উপর হামলা করে আসছেন। এমনকি উনি এও বলেছেন যে, গালওয়ান উপত্যকা ইস্যুতে ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী একেবারে ব্যর্থ। এমনকি উনি এও বলেন যে, নরেন্দ্র মোদী চীনের সামনে আত্মসমর্পণ করেছেন।

রাহুল গান্ধীর এই বয়ানের পর বিজেপি যেমন একের পর এক রাহুল গান্ধী এবং কংগ্রেসকে আক্রমণ করে চলেছেন। তেমনই আরেকদিক থেকে এবার কংগ্রেস এবং কংগ্রেসের সহযোগী দলও রাহুল গান্ধীকে চীন ইস্যু নিয়ে যোগ্য জবাব দিচ্ছে। যদিও এটা প্রথম না, এর আগে পুলওয়ামা হামলার সময়েও রাহুল গান্ধী সরকারের পাশে দাঁড়ানোর কথা বলে বারবার সরকারকে আক্রমণ করে এসেছিল।