Press "Enter" to skip to content

সিএএ এর সমর্থনে রাহুল ব্রিগেডকে চাপে ফেলে মোদী সরকারের পাশে দাঁড়ালেন কংগ্রেস বিধায়ক

শেয়ার করুন -

নাগরিকতা সংশোধন আইনকে কংগ্রেসের অন্তরিম সভাপতি সনিয়া গান্ধী, রাহুল গান্ধী আর প্রিয়ঙ্কা বঢড়া সংবিধান আর গণতন্ত্র বিরোধী বলে আখ্যা দিয়েছে। কিন্তু কংগ্রেসেরই এক বিধায়ক তাঁদের কথায় সহমত না। কংগ্রেস বিধায়ক নাগরিকতা সংশোধন আইন আর রাষ্ট্রীয় নাগরিকপঞ্জিকে না মিশিয়ে ফেলার কথা বলেছেন। কংগ্রেসের ওই বিধায়কের নাম হরদীপ সিং ডাং (hardip singh dang)।

হরদীপ সিং ডাং

মন্দাসৌর জেলার সুবাসরা আসন থেকে কংগ্রেসের বিধায়ক হরদীপ সিং ডাং মিডিয়ার সাথে কথা বলার সময় বলেন, ‘পাকিস্তান, বাংলাদেশ আর আফগানিস্তান থেকে আসা শরণার্থীরা যদি এদেশে সুবিধা পায়, আর যদি আমরা সিএএ আর এনআরসিকে আলাদা করে দেখি, তাহলে এতে কোন সমস্যা নেই। আমাদের এটাও দেখতে হবে যে, যারা বছর বছর ধরে ভারতে বসবাস করছে আর এখানেই বড় হয়েছে, তাঁদের থেকে এনআরসি এর জন্য কাগজ চাওয়া হচ্ছে।”

কংগ্রেস বিধায়ক স্পষ্ট জানান যে, ‘রাজনৈতিক দল গুলো এই ইস্যুকে এমন ভাবে সাজিয়েছে যে, দেশের মানুষ এখন সিএএ আর এনআরসিকে একভাবে দেখেছে।” কংগ্রেস বিধায়ক জানান, আমি ছাড়াও জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়াও জম্মু কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা তুলে দেওয়ার আর সিএএ নিয়ে কেন্দ্র সরকারকে সমর্থন জানিয়েছে।

হরদীপ সিং ডাং

কংগ্রেসের কার্যসমিতির বৈঠকে সিএএকে ফেরত নেওয়ার দাবি তোলার দিনেই কংগ্রেসের বিধায়কের এই বয়ান সামনে এসেছে। কংগ্রেস জানিয়েছে যে, সিএএকে ফেরত নিতে হবে আর এনআরসি প্রক্রিয়া বন্ধ করতে হবে।