Press "Enter" to skip to content

ভগবান শিবকে নিয়ে আপত্তিজনক পোস্ট সায়নি ঘোষের! গালাগালি খাওয়ার পর করলেন ডিলিট

শেয়ার করুন -

আপনি বাঙালি হন বা বিহারী বা গুজরাটি সবকিছুই সবশেষে ভারতীয় হিন্দু সংস্কৃতিতে এসে মিলিত হয়। একটা গাছের ডাল যেভাবে একটা সম্পূর্ণ বৃক্ষের অংশ, একইভাবে আপনি বাঙালি সংস্কৃতিতে বড়ো হয়ে উঠুন বা তামিল সংস্কৃতিতে সবকিছুই হিন্দু সংস্কৃতির অংশ।  লিবারেল জামাতদের একটা বড়ো অংশ বিচ্ছিনতবাদীকে উস্কে দিয়ে হিন্দু সংস্কৃতির বিরোধিতা করতে নেমে পড়ে।

লিবারেল জামাতদের এই গ্রুপ অতি চালাকির সাথে স্থানীয় সংস্কৃতির আড়ালে নিজেদের রাখার চেষ্টা করে সম্পূর্ণ হিন্দু সংস্কৃতিকে টার্গেট করতে শুরু করে। অবশ্য সরল সাধারন হিন্দুদের ধর্মীয় অনুভুতিতে আঘাত করা লিবারেল, কট্টরপন্থীদের নিয়মিত কাজ হয়ে উঠেছে। এই পরিপ্রেক্ষিত এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় নতুন চর্চা শুরু হয়েছে। যেখানে টলিউড অভিনেত্রী সায়নি ঘোষের বিরুদ্ধে হিন্দু দেবতাকে নিয়ে আপত্তিকর পোস্ট করার অভিযোগ উঠেছে।

আসলে সায়নি ঘোষ (Saayoni Ghosh) সম্প্রতি বলেছিলেন যে বাইকে চেপে জয় শ্রী রাম বলা বাঙালি সংস্কৃতি নয়। এই মন্তব্য করার পর সায়ানি ঘোষের এক পুরানো টুইট ভাইরাল হয়ে পড়ে। টুইটে সায়নি ঘোষ শিবরাত্রি উপলক্ষে একটা ছবি পোস্ট করেছিলেন। ছবিতে শিবলিঙ্গের উপর বুলা দিকে কনডম পরাচ্ছে, এমন অবস্থায় দেখা যাচ্ছে। সায়নি ঘোষ এর ছবি পোস্টে লেখা রয়েছে-‘Gods cudnt have been more useful!’,

সায়নি ঘোষ ২০১৫ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারী পোষ্টটি করেছিলেন। ১৭ ফেব্রুয়ারি শিবরাত্রির দিন ছিল, ঠিক তার পরের দিন সায়নি ঘোষ এই আপত্তিকর পোস্ট নিজের টুইটার হ্যান্ডেল থেকে পোস্ট করেছিলেন। সেই সময় পোস্টটি নিয়ে বিতর্ক তৈরি না হলেও এখন সায়নি ঘোষের মন্তব্যকে কেন্দ্র করে তার পুরানো টুইট ভাইরাল হয়ে পড়েছে।

সায়নী ঘোষের ভাইরাল পুরানো টুইটের উপর অনেকে আক্রোশ প্রকাশ করেছেন। বিশ্বজিত মুখার্জি নামের এক ইউজার লিখেছেন, দুই পয়সার অভিনেত্রীর কাছে থেকে আমাদের বাংলার সংস্কৃতি শিখতে হোবে টাই না? সবথেকে অবাক করার বিষয় যে, অভিনেত্রী শিবরাত্রি প্রসঙ্গে আপত্তিজনক পোষ্ট করলেও খ্রিস্টমাস বা বা ঈদের ক্ষেত্রে খুবই ভদ্রতার সাথে পোষ্ট করেছিলেন। এই নিয়েও অনেকে অভিনেত্রীকে আক্রমণ করেছেন।

অভিনেত্রীকে রুদ্রজিত নামের একজন ইউজার কটাক্ষ করে লিখেছেন, ” হ্যাঁ মা দুর্গা কৈলাশের হনূমান কর্ণাটকের শ্রী কৃষ্ণ উত্তর ভারতের একমাত্র পার্কষ্ট্রীট এ জন্ম নেওয়া যীশু আর লেলিন সরনিতে জন্ম নেওয়া লেলিন বাংলার ভুমিপুত্র।” সবমিলিয়ে সায়নি ঘোষকে যে সোশ্যাল মিডিয়া ইউজাররা একহাতে নিয়েছেন তা নিয়ে কোনও সন্দেহ নেই। ব্যাপক সমালোচনার পর অভিনেত্রী ২০১৫ সালের পুরানো টুইট টুইটার হাণ্ডেল থেকে সরিয়ে নিয়েছেন। অবশ্য পোস্ট সরিয়ে নিলেও এখন টুইটারে স্ক্রিন শট নিয়ে বেশ উত্তাল সোশ্যাল মিডিয়া।