নতুন খবররাজনীতি

সমীক্ষাঃ ৪৫ এর বেশি আসন নিয়ে দিল্লীতে ক্ষমতায় আসতে চলেছে বিজেপি

২০২০ () এর জন্য বৃহস্পতিবার বিকেল থেকেই প্রচার অভিযান বন্ধ হয়ে যায়। আর ঠিক তাঁর আগেই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী () দিল্লীতে বিজেপির () সরকার গঠনের দাবি করেন। উনি ট্যুইট করে লেখেন, নির্বাচনী প্রচারের সময় দিল্লীতে মানুষের কাছে যাওয়ার সুযোগ পেয়েছি। মিথ্যে প্রতিশ্রুতি, তোষণ আর অরাজকতা দিয়ে ত্রস্ত দিল্লী এবার শুধু উন্নয়ন চায়। উনি বলেন, মানুষের সমর্থন দেখে এটা পরিস্কার যে ১১ ফেব্রুয়ারি ৪৫ এর বেশি আসন নিয়ে দিল্লীতে সরকার বানাবে।

বিজেপি নেতাদের অনুযায়ী, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ আর উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের র‍্যালি দিল্লীতে নির্বাচনী আবহাওয়া পালটে দিয়েছে। আরেকদিকে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর র‍্যালির পর দিল্লীর হাওয়া বিজেপির পক্ষেই যেতে দেখা যাচ্ছে। পূর্ব দিল্লীতে সোমবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী র‍্যালি করেন। আর এর ঠিক পরেই দিল্লীর সমস্ত বিধানসভা এলাকাতেই ইন্টার্নাল সমীক্ষা করানো হয়। সমীক্ষার ভিত্তিতে বলা হচ্ছে যে, শাহিনবাগ, সার্জিক্যাল স্ট্রাইক, বাটলা হাউস এর মতো ইস্যু গুলোতে নরেন্দ্র মোদী যেভাবে নিজের কথা সবার সামনে রেখেছেন, সেটা মানুষের উপরে ভালো প্রভাব ফেলেছে।

নরেন্দ্র মোদীর র‍্যালির আগে বিজেপি যতগুলো ইন্টার্নাল সমীক্ষা করিয়েছিল, সেখানে বিজেপি টক্কর দিলেও ফলাফল আম আদমি পার্টির দিকেই ঝুঁকছিল। কিন্তু প্রথমে যদি আর পরে প্রধানমন্ত্রীর র‍্যালির পর শেয়ানে শেয়ানে টক্কর দেখা দিয়েছে। এবার ফলাফল বিজেপির পক্ষে দেখা যাচ্ছে।

সবথেকে বড় ব্যাপার হল, এই সমীক্ষায় অনেক আসনেই কংগ্রেসকে জিততে দেখা যাচ্ছে। পার্টির সুত্র অনুযায়ী, সোমবার করা ইন্টার্নাল সমীক্ষায় বিজেপির ঝুলিতে ২৭ টি আসন আসছে দেখা যাচ্ছে। আরেকদিকে আম আদমি পার্টির ঝুলিতে ২৬ এবং কংগ্রেসের ঝুলিতে আট থেকে নয়টি আসন। বাকি আসন গুলোতে বেশ জোরালো লড়াই হতে চলেছে।

Back to top button
Close