নতুন খবর

স্কুল বাসের উপর ঢিল, পাথর ছুঁড়ে আক্রমন করলো কট্টরপন্থীরা! পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নামলো বিশাল পুলিশবাহিনী।

নাগরিকত্ব সংশোধন আইনের বিরুদ্ধে দেশের অনেক জায়গায় বিক্ষোভ অব্যাহত রয়েছে। উত্তর পূর্ব দিল্লির (Delhi) সিলামপুর এলাকায় বিপুল সংখ্যক লোক বিক্ষোভ করছে। বিক্ষোভ চলাকালীন বেশ কয়েকটি গাড়ির কাঁচ ভেঙে দেওয়া হয়েছে। পাথর ছোঁড়ার ঘটনায় কয়েকজন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। কাশ্মীরে যেভাবে জেহাদীরা উৎপাত করে সেইভাবে রাজধানী দিল্লীতে উৎপাত শুরু হয়েছে। প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী বাচ্চাদের স্কুল বাসকে লক্ষ করেও পাথর ছোড়া হয়েছে। CAB বিলে বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান থেকে আগত হিন্দু , বৌদ্ধ , খ্রিস্টানদের নাগরিকত্ব দেওয়া হবে। যার বিরোধে উপদ্রব শুরু করেছে কট্টরপন্থীরা।

কট্টরপন্থীরা দাবি করেছে যে, পাকিস্তান বা বাংলাদেশ থেকে আগত মুসলিমদেরও নাগরিকত্ব দিতে হবে। কট্টরপন্থীরা বলেছে, মোদী সরকার ধর্মের ভিত্তিতে ভেদাভেদ করছে। সব ধর্মের মানুষ সমান তাই বাংলাদেশ থেকে আগত হিন্দুকে নাগরিকত্ব দিলে বাংলাদেশ,পাকিস্তান থেকে আগত মুসলিমদেরও নাগরিকত্ব দিতে হবে। সব মিলিয়ে রোহিঙ্গা সহ সকল অবৈধ অনুপ্রবেশকারীদের নাগরিকত্ব দেওয়ার দাবি উঠেছে।

সিলামপুরে বিক্ষোভকারীরা গাড়ি ভাঙচুর করে এবং আগুন ধরিয়ে দেয়, সহিংস বিক্ষোভের পরে, পাশের মেট্রো স্টেশন, রাস্তা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। তবে, বিশাল সংখ্যায় পুলিশ বাহিনী নেমে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনেছে। পরিবেশ এখন শান্ত এবং বিক্ষোভকারীরা ফিরে গেছে। দিল্লীতে পাথরবাজি হওয়ার সময় CCTV ক্যামেরা বন্ধ করা হয়েছিল বলে অভিযোগ উঠেছে। কেজরিওয়াল সরকার এই ষড়যন্ত্র করেছে বলে অভিযোগ সামনে এসেছে।

CAA নিয়ে সরকার জানিয়েছে, বিল পাস করানো হয়েছে পাকিস্তান, বাংলাদেশ ও আফগানিস্তানে থাকা সংখ্যা লঘুদের জন্য তারা সেখানে ধর্মীয় কারণে নিপীড়িত। এখন সরকারের বিরুদ্ধে মাঠে নেমে লুঙ্গি বাহিনী ও অন্যান্য কট্টরপন্থীরা দেশের সম্পত্তি নষ্ট করতে নেমেছে। প্রতিবাদকারীদের দাবি, সংবিধান বিরোধী নতুন আইনটি প্রত্যাহার করা উচিত, এর আগে জামিয়াও নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে সহিংস বিক্ষোভ প্রত্যক্ষ করেছিলেন।

Related Articles

Back to top button