নতুন খবরপশ্চিমবঙ্গ

বনমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভূয়সী প্রশংসা দিলীপ ঘোষের, বাড়ল জল্পনা

নামখানাঃ আজ হাওয়া বদলে রাজ্যের বনমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Rajib Banerjee) প্রশংসায় পঞ্চমুখ হলেন বঙ্গ বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh)। একদিকে, রাজীব বাবু একের পর এক মন্ত্রীসভার বৈঠকে অনুপস্থিত থেকে জল্পনা বাড়িয়েছিলে, আর এবার দিলীপ ঘোষ ওনার প্রশংসা করে সেই জল্পনার আগুনে ঘি ঢাললেন। গতকাল নামখানার একটি জনসভা থেকে বনমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে সৎ মানুষের সারটিফিকেট দেন। দিলীপ ঘোষ বলেন, রাজীব বাবু দুর্নীতিতে নাম জড়াতে চাননি বলেই ওনাকে সেচ দফতর খোয়াতে হয়েছিল।

এই জনসভা থেকে নিজের কায়দাতেই তৃণমূলকে একের পর এক আক্রমণ করেন তিনি। দক্ষিণ ২৪ পরগনা জলায় নদীবাঁধ নির্মাণ না হওয়ার কারণেও রাজ্য সরকারকে কাঠগড়ায় তোলেন তিনি। দিলীপ ঘোষ এও বলেন যে, তৃণমূলের লাগামহীন দুর্নীতির কারণেই নদীবাঁধ নির্মাণ হয়নি।

জনসভা থেকে দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘রাজীব ঘোষ সেচমন্ত্রী থাকাকালীন সুন্দরবনের সমস্ত নদীবাঁধ পাকা হওয়ার কথা ছিল। সেই সময় তিনি বাঁধ নির্মাণের কাজ শুরু করিয়ে দেন। রাজীব বাবু সৎ মানুষ, দুর্নীতিতে থাকবেন না। আর এই কারণে ভাইয়েরা কাটমানি পাওয়া থেকে বিরত থাকেন। ভাইয়েরা কাটমানি পাচ্ছিল না দেখে অবশেষে রাজীব বাবুকে সেচ মন্ত্রীত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হল। ওনাকে ওখান থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে বনমন্ত্রী করে দেওয়া হল। দিদি বলল, যা জঙ্গলে ঘোর গিয়ে এবার।”

বলে রাখি, বিগত কিছুদিন ধরেই রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে রাজ্য রাজনৈতিক মহে চরম জল্পনা সৃষ্টি হয়েছে। তিনি রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে সুরও চড়িয়েছেন। এমনকি তিনি দাবি না পূরণ হলে কলকাতা অবরুদ্ধ করার হুঁশিয়ারিও দিয়েছিলেন। এরপর তিনি পরপর কয়েকটি মন্ত্রীসভার বৈঠকও এড়িয়ে গিয়েছিলেন। আর সেই নিয়েও শুরু হয়েছিল নানান জল্পনা। এরপর ওনার সাথে তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সাথে বৈঠকও হয়, কিন্তু সেই বৈঠকেও কোনও সুরাহা হয়নি বলেই সুত্রের খবর।

Related Articles

Back to top button