নতুন খবর

ভারত হবে আগামী দিনের বিশ্বগুরু, সঙ্কেত দিচ্ছে আমেরিকা! চাপে চীন ও পাকিস্তান

একবার স্বামী বিবেকানন্দ বিদেশ সফরে ছিলেন সেখানে উনাকে দেখার জন্য প্রচুর লোকজন জড়ো হয়েছিল। সকলে বিবেকানন্দকে হাই, হেলো, ইত্যাদি বলে ডাক দিচ্ছিলেন। স্বামীজী কোনো উত্তর না দিয়ে চুপ করে ছিলেন। সকলে ভেবেছিল স্বামীজি হয়তো ইংরাজি জানেন না। এরপর ভিড়ের মধ্যে থেকে একজন বলে উঠেছিল, আপ ক্যাইসে হে? এটা শোনার পরেই স্বামীজী বলেন- I am fine, How are you? সকলেই অবাক হয়েছিলেন যে এতক্ষন পর কেন স্বামীজী উত্তর দিলেন। এরপর স্বামীজি বলেছিলেন তুমি আমার মাকে (ভাষাকে) সন্মান দিলে তাই আমিও তোমার মাকে সন্মান দিলাম।

আসলে পরাধীন ভারতে ভারতীয় ভাষাকে নীচু চোখে দেখা হতো। যা স্বামীজির মনকে কষ্ট দিত। তবে এখন সময়ের পরিবর্তন হতে দেখা মিলছে। ভারতের আর্থিক ও সামরিক শক্তির বৃদ্ধির সাথে সাথে ভারতের বিশ্বগুরু হওয়ার পথ প্রশস্ত হচ্ছে। যা আমেরিকার মতো দেশ এখন থেকেই আন্দাজ করতে পারছে। মাত্র কিছুদিন আগেই ভারত দেশ অর্থনীতি পঞ্চম স্থান অধিকার করেছে এবং PPP যে তৃতীয় স্থান অধিকার করেছে। যা পুরো বিশ্বের নজর ভারতের দিকে টেনেছে। আর এখন ট্রাম্প ভারতের প্রতি যে ইঙ্গিত দিচ্ছেন তা বেশ লক্ষণীয়। ট্রাম্পের ভারত সফর যে ভারতের শত্রু দেশগুলির ঘুম কাড়বে তা নিয়েও কোনো সন্দেহ নেই।

বিশ্বে ভারতের মর্যাদা কিভাবে বৃদ্বি হচ্ছে তা দেখার মতো। বিশ্বের সবথেকে শক্তিশালী দেশ আমেরিকা এখন ভারতকে সম্মান জানাতে পিছু হটছে না। ট্রাম্প (Donald Trump) ভারতে আসার আগে হিন্দিতে টুইট করে লিখেছিলেন-” হাম রাসতে মে হ্যায়, কুছহি ঘনটে মে হাম সাবসে মিলেঙ্গে।” ভারতের প্রধানমন্ত্রী মোদী সেটাকে রিটুইট করে লিখেছেন- অথিতি দেব ভব।

এক সময় ছিল যখন ভারত ও ভারতীয় ভাষার প্রতি বিশ্বের কোনো দেশ সন্মান জানতো না। আর এখন বিশ্বের সবথেকে শক্তিশালী ব্যক্তিত্ব ডোনাল্ড ট্রাম পর্যন্ত ভারতীয় ভাষায় টুইট করে সন্মান জ্ঞাপন করেছেন।

এক সময় সৌদি আরবের মতো ছোট দেশগুলি ভারতেকে লাল চোখ দেখিয়ে দাপট দেখাতো। তবে মোদী আমলে আন্তর্জাতিক মহলে ভারতের ছবি যে পরিবর্তন হয়েছে তা নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই।

Back to top button
Close