Press "Enter" to skip to content

শান্তিতে নির্বাচন হবে বাংলায়, অতি কঠোর নির্বাচন কমিশন নিয়োগ হল রাজ্যে

শেয়ার করুন -

কলকাতাঃ ‘এবার শান্তিতে ভোট দিতে পারবেন।” কথাটি বলেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড় এবং মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সুনীল অরোরা। আর সেই ক্রমেই এবার নজিরবিহীন ভাবে দুজন IPS অবজার্ভার নিযুক্ত করল মুখ্য নির্বাচন কমিশনার। এছাড়াও একজন এক্সপেন্ডিচার অবজার্ভার ও এখন স্পেশ্যাল অবজার্ভার থাকবেন।

বাংলার ভোটে প্রতিবারই অশান্তির চিত্র ফুটে ওঠে। বারবারই শাসক দলের বিরুদ্ধে ভোট দিতে না দেওয়া, ছাপ্পা ভোট আর বুথ দখলের অভিযোগ ওঠে। আর সেই ক্রমে এবার নির্বাচন শান্তিপূর্ণ করানোর জন্য বিরোধী দলগুলো লাগাতার কমিশনের কাছে দাবি জানিয়ে যাচ্ছিল। আর সেই ক্রমে কমিশনও এবার রাজ্যে ভোটের দফাও বাড়িয়ে দিয়েছে। এবং ভোট ঘোষণার আগেই রাজ্যে কেন্দ্রীয় বাহিনী পাঠিয়েছে।

আজ মুখ্য নির্বাচন কমিশনা সুনীল অরোরা জানান যে, রাজ্যে দুজন অবজার্ভার নিয়োগ করা হবে। একজন হলেন মৃণাল কান্তি দাস। আরেকজন বিবেক দুবে। মৃণাল কান্তি দাস মণিপুর ক্যাডারের ১৯৭৭ ব্যাচের IPS অফিসার। তিনি ২০১৯ এর লোকসভা ভোটে ত্রিপুরায় পুলিশের অবজার্ভার ছিলেন। বিবেক দুবে হলেন, অন্ধ্রপ্রদেশ ক্যাডারের ১৯৮১ ব্যাচের IPS অফিসার। বিবেক দুবে ২০১৯ এর লোকসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গ পুলিশের অবজার্ভার ছিলেন।

এছাড়াও রাজ্যে স্পেশ্যাল অবজার্ভার থাকবেন অজয় নায়েক। ১৯৮৪ ব্যাচের IAS অফিসার তিনি। অজয় নায়েক একদা বিদারের মুখ্য নির্বাচন অফিসার ছিলেন। সুনীল অরোরা ওনার কথা উল্লেখ করে বলেন, ‘অজয় নায়েক ইজ দ্য বেস্ট অফ দ্য বেস্ট অফিসার।” এছাড়াও বি মুরলীকুমারকে রাজ্যের এক্সপেন্ডিচার অবজার্ভার হিসেবে নিযুক্ত করা হয়েছে।

মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সুনীল অরোরা স্পষ্ট জানিয়ে দেন যে, শুধুমাত্র পশ্চিমবঙ্গেই দুজন পুলিশ অবজার্ভার নিয়োগ করা হয়েছে। বাকি তিনটি রাজ্য অসম, কেরল এবং তামিলনাড়ুতে একজন করেই পুলিশ অবজার্ভার থাকবেন। এবং কেন্দ্র শাসিত প্রদেশ পদুচেরিতেও একজন পুলিশ অবজার্ভার থাকবেন।