আন্তর্জাতিকনতুন খবর

ECOSOC তে ভারতের কাছে লজ্জাজনক হার চীনের! জিনপিং সরকারের মেরুদন্ড ভাঙার বড়ো সুযোগ ভারতের হাতে

বিশ্বে ভারতের শক্তিকে বৃদ্ধি করতে মোদী সরকার ব্যাপক কাজ করছে এবং তার ফলাফল চোখের সামনে দেখা যাচ্ছে। ভারতীয় কূটনীতিবিদরা লাগাতার চীনকে কোনঠাসা করছে এবং ভারতের মাথা উঁচু করে রেখেছে।
সংযুক্ত রাষ্ট্রের কমিশন অন স্ট্যাটাস অফ উমেন এর একটি গুরুত্বপূর্ণ নির্বাচনে ভারত (India) চীনকে হারিয়ে দিয়েছে। এই নির্বাচনে এশিয়া মহাদেশের দিক থেকে ভারতবর্ষ, আফগানিস্তান, চীন অংশ নিয়েছিল।

যেখানে ভারত অনেক বেশি ভোট পেয়ে চীনকে হারিয়ে দিয়েছে। যে সংস্থার জন্য নির্বাচন হয়েছে তা মূলত লিঙ্গ সমতা এবং মহিলা ক্ষমতায়নের জন্য কাজ করে থাকে।
প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, সোমবার জেনারেল অ্যাসেম্বলি হলে ২০২১ এর অধিবেশনের বৈঠক সম্পন্ন হয়েছিল। যেখানে এশিয়ার দেশ গুলোর জন্য ভারত, আফগানিস্তান ও চীনের জন্য নির্বাচন হয়। মুখোমুখি লড়াইতে চীনের এমন হার প্রমান করেছে যে বিশ্বজুড়ে চীন কতটা বদনাম হয়েছে।

ECOSOC নির্বাচনে চীনের লজ্জাজনক হার হয় অন্যদিকে আফগানিস্তান ৩৯ টি ভোট পায়। নির্বাচনে চীনকে হারিয়ে ভারত ৩৮ টি ভোট পেয়ে জয়ী হয়। জানিয়ে দি এই নির্বাচন চীনের জন্য জেতা খুবই গুরুত্বপূর্ণ ছিল। তা সত্ত্বেও ভারতের সাথে পতিদ্বন্দীতায় চীনের হার হয়। আসলে বেজিং ওয়ার্ল্ড কনফারেন্স অফ উইমেন এর ২৫ তম এনিভার্সারী ছিল। চীনের এমন হার নিয়ে চীনের ভেতরে সরকারের বিরুদ্ধে আওয়াজ উঠছে বলে শোনা যাচ্ছে। যদিও সেই আওয়াজগুলিকে দমিয়ে দেওয়া হয়েছে। লক্ষণীয় বিষয় যে, এই নির্বাচনে জেতার দরুন ভারত এবার মহিলা সংক্রান্ত ইস্যুতে চীনকে ঘেরার বড়ো সুযোগ হাতে পাবে। ভারত আন্তর্জাতিক মহল থেকে সরাসরি চীনের ভেতরের বিষয়ের দখলবাজি করার সুযোগ পাবে। যাকে নিঃসন্দেহ ভারত সময় হিসেবে কাজে লাগাবে ।

বিশ্বে চীনের দারুন প্রভাব ও নিজের আর্থিক শক্তির বড়াই করে জিনপিং সরকার। তবে এই নির্বাচনে চীনের হাওয়াবাজি সকলের সামনে স্পষ্ট করে দিয়েছে যে চীনের শক্তির প্রভাব কতটা। এই নির্বাচনে চীনকে হারানোর জন্য ভারত আফগানিস্তাকেও প্রমোট করেছিল। ভারত নিজের রণনীতিকে কাজে লাগিয়ে চীনকে হারিয়ে দিয়েছে। অন্যদিকে চীন নিজের আর্থিক শক্তি দিয়েও অর্ধেক ভোট সংগ্রহ করতে পারেনি।

Back to top button
Close