Press "Enter" to skip to content

চীনের দেখানো পথে হাঁটতে চলেছে এমানুয়েল ম্যাক্রোঁ, ফ্রান্সে বিপদে মুসলিমদের স্বাধীনতা

শেয়ার করুন -

নয়া দিল্লীঃ ইসলামিক কট্টরবাদের বিরুদ্ধে কড়া অ্যাকশন নিয়ে ফ্রান্সের সংসদে বিতর্কিত বিল পাশ হয়ে গেল। এই বিলে মসজিদ আর মাদ্রাসায় সরকারি নজরদারি বাড়ানো আর বহু বিবাহ এবং জোর করে বিয়ে করার বিরুদ্ধে কড়া আইন আছে। বিলে ফ্রান্সের ধর্মনিরপেক্ষ ঐতিহ্যকে কমজোর করা মানুষদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়ার নিদান দেওয়া আছে। ফ্রান্সের সংসদে এই বিলের সমর্থনে ৩৪৭ টি ভোট পড়েছে আর বিপক্ষে পড়েছে ১৫১ টি ভোট।

গত বছর শিক্ষক স্যামুয়েল প্যাটি হত্যার পর ফ্রান্সে ইসলামিক কট্টরতার বিরুদ্ধে কড়া আইন আনার দাবি উঠেছিল। ফ্রান্সের রাষ্ট্রপতি এমানুয়েল ম্যাক্রোঁ অনেকবার বলেছিলেন যে, খুব শীঘ্রই কট্টরতার বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে। শোনা যাচ্ছে যে, সংসদের পাশ হওয়া এই বিলের কারণে আগামীদিনে দেশে বড়সড় বদল আসতে চলেছে। কারণ এই বিল সরাসরি ভাবে মুসলিম সম্প্রদায়কে প্রভাবিত করবে। আর এই বিল এবার সংসদের উচ্চ সদনে পেশ হবে।

ফ্রান্সের রাষ্ট্রপতি এমানুয়েল ম্যাক্রোঁ বলেন, সম লিঙ্গতা আর ধর্মনিরপেক্ষতার মতো ফ্রান্সের ঐতিহ্যকে রক্ষা করার দরকার। আর এইজন্য দেশের স্বার্থে এই আইন আনা হয়েছে। আরেকদিকে, ফ্রান্সে থাকা মুসলিমরা জানায়, এই আইনের ফলে শুধু তাঁদের ধার্মিক স্বাধীনতা সীমিত করে দেওয়া হবে না, এতে তাঁদের নিশানাও করা হবে। ফ্রান্সের মুসলিমরা জানায়, দেশে আগে থেকেই সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের জন্য পর্যাপ্ত আইন আছে, তাই এই নতুন বিলের কোনও দরকার নেই।

ওয়াকিবহাল মহলের মতে, এমানুয়েল ম্যাক্রোঁর নজর ফ্রান্সে আগামী বছর হতে চলা রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের উপর আছে। আর সেই নির্বাচনকে মাথায় রেখেই তিনি এই বিল এনেছেন। এই বিলের মাধ্যমে ডানপন্থী ভোটারদের নিজের দিকে টানার প্রয়াস করছেন ম্যাক্রোঁ। ওয়াকিবহাল মহলের মতে, সংসদের উচ্চ সদনেও এই বিল সহজেই পাশ হয়ে যেতে পারে। উল্লেখ্য, গত বছরের অক্টোবর মাসে পড়ুয়াদের পয়গম্বর মহম্মদের কার্টুন দেখানোর অপরাধে এক হামলাকারী ধর্মীয় স্লোগান দিয়ে শিক্ষক স্যামুয়েল প্যাটির গলা কেটে দিয়েছিল। এই ঘটনা ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিস থেকে মাত্র ৩০ কিমি দূরে একটি স্কুলের বাইরে ঘটেছিল।