নতুন খবরপশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

‘ইসলাম শান্তির ধর্ম” মৌলবাদীদের রোষের মুখে পড়ে সাফাই দিলেন ফিরহাদ হাকিম

কলকাতাঃ গত রবিবার আলিপুর চেতলা রোডের একটি ধর্মীয় অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন ফিরহাদ হাকিম (Firhad Hakim)। আর সেখান থেকেই বর্তমান সময়ে চলতে থাকা হিংসা নিয়ে এক বিস্ফোরক মন্তব্য করেছিলেন তিনি। ফিরহাদ হাকিম বলেছিলেন, ‘‘সবাই হিংসা হানাহানি করছে আজকের দিনে। বিশ্বে একদিকে চলছে হিন্দুত্ববাদের হিংসা, আর অন্যদিকে চলছে ইসলামাবাদের হিংসা। এসবের মধ্যে একমাত্র বৌদ্ধ ধর্মের মধ্য দিয়েই শান্তি ফিরবে। আর সেই পথ ধরেই আমাদের অহিংসার রাস্তায় এগোতে হবে।”

রবিবার ফিরহাদ হাকিম আরও বলেছিলেন, ‘বিশ্বজুড়ে আজ যখন হিন্দুত্ববাদেও হিংসা, ইসলামবাদেও হিংসা, তথা হিংসা ও হানাহানি চলছে, এই পরিস্থিতিতে আমাদের একমাত্র বুদ্ধদেবই রাস্তা দেখাতে পারেন। যা মানবজাতিকে বাঁচাবে, পৃথিবীকে বাঁচাতে পারবে।”

ওয়াকিবহাল মহলের ধারণা, পরিবহণমন্ত্রী তাঁর এই কথার মধ্যে দিয়ে বোঝাতে চেয়েছেন- কোনও ধর্মই কিন্তু মানুষকে হিংসার কথা বলে না। তবে এই সমস্যাটা হয় মৌলবাদী কিছু মানুষের জন্যই। আবার অনেকে তাঁর এই মন্তব্যের মধ্যে দিয়ে ‘দ্য ফেস অফ বুদ্ধিস্ট টেরর’ নামে পরিচিত মুসলিম বিরোধী বৌদ্ধ ভিক্ষু আশিন উইরাথুর উদাহরণও টেনে এনেছেন। যিনি কট্টর জাতীয়তাবাদী এবং রোহিঙ্গা মুসলিম বিরোধী বক্তব্যের জন্য নজরে এসেছিলেন।

তবে এবার নিজের করা সেই মন্তব্যের জেরে ক্ষমাও চেয়ে নিলেন কলকাতা পুরসভা পুর প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম। এদিন তিনি একটি ট্যুইট করে লেখেন, ‘আমি সকল ধর্মকে সম্মান করি এবং আমার কথায় কারো অনুভূতিতে আঘাত লাগলে আমি ক্ষমাপ্রার্থী। আমি এটা বলতে চাইনি, আমার বক্তব্যের ভুল ব্যাখ্যা করা হয়েছে। আমার ধর্ম ইসলাম শান্তির ধর্ম এবং আমাকে মানবতা ও অন্য সকল ধর্মকে সম্মান করতে শেখায়।”

উল্লেখ্য, ফিরহাদ হাকিম এই মন্তব্য করায় চারিদিকে তুমুল সমালোচনা হচ্ছিল। বিশেষ করে সংখ্যালঘুরা ওনার এই মন্তব্য কিছুতেই মেনে নিতে পারেনি। আর সেই কারণেই চারিদিক থেকেই বিক্ষোভের সুর উঠছিল। তবে বিতর্ক বেশি ছড়িয়ে পড়ার আগেই ওনার মন্তব্যকে ভুল ব্যাখ্যা করা হয়েছে বলে সাফাই দেন ফিরহাদ হাকিম।

Related Articles

Back to top button