নতুন খবরভারতবর্ষ

এটাই দেশের প্রথম এনকাউন্টার, যেখানে সাহসি পুলিশের গুলিতে খতম হয়েছিল কুখ্যাত অপরাধী

পুলিশ দ্বারা এনকাউন্টারের () খবর আপনি অনেকবার শুনেছেন। কিন্তু আপনি কি জানেন, দেশের প্রথম এনকাউন্টার কবে হয়েছিল? কোন রাজ্যের পুলিশ দেশের প্রথম এনকাউন্টার করেছিল? আর সেই এনকাউন্টারে কাকে খতম করা হয়েছিল? আসুন তাহলে জেনে নিই। দেশের প্রথম এনকাউন্টার মহারাষ্ট্রের মুম্বাই পুলিশের নামে দায়ের আছে। মুম্বাইতে গ্যাংওয়ারে লাগাম লাগানোর জন্য একটি টিম বানানো হয়েছিল। আর তাঁর নাম দেওয়া হয়েছিল ‘এনকাউন্টার স্কোয়াড” এই এনকাউন্টার ৯০ এর দশকে চর্চায় এসেছিল।

এটা সেই সময় ছিল, যখন এনকাউন্টার স্কোয়াড দাউদ ইব্রাহিমের ডি-কোম্পানি গ্যাং, অরুণ গাবলীর গ্যাং আর অমর নাইকের গ্যাংয়কে শান্ত করার কাজ শুরু করে। তখন গ্যাংস্টারদের চারিদিক থেকে ঘিরে ফেলার পর তাঁকে আত্মসমর্পণ করার জন্য বলা হত, কিন্তু অপরাধীরা পুলিশের উপর হামলা করে পালানোর চেষ্টা করত। আর পুলিশ সেই গ্যাংস্টারকে গুলি করে খতম করত। সেটিকে এনকাউন্টার নাম দেওয়া হয়েছিল।

দেশের ইতিহাসে প্রথম এনকাউন্টার ১১ই জানুয়ারি ১৯৮২ সালে হয়েছিল। মুম্বাই পুলিশের দুই আধিকারিক রাজা তাম্বট আর ইশাক বাগবান কুখ্যাত অপরাধী মান্যা সুর্বে ()কে মুম্বাইয়ের ওডালাতে গুলি করেছিল। মুম্বাইয়ের সাথে সাথে দেশের ইতিহাসে অফিসিয়ালি ভাবে এটাই প্রথম এনকাউন্টার ছিল। মান্যা সুর্বের পুরো নাম মনোহর অর্জুন সুর্বে ছিল। আর সে এক কুখ্যাত গ্যাংস্টার ছিল।

ইশাক বাগবান

মান্যা মুম্বাইয়ের কীর্তি কলেজ থেকে স্নাতক স্তরে পড়াশুনা করেছিল। তারপর একটি হত্যার মামলায় তাঁকে সাজা দেওয়া হয়েছিল। তাঁকে পুনের জরবদা জেলে রাখা হয়েছিল। শোনা যায় যে, যেই হত্যার মামলায় তাঁকে সাজা দেওয়া হয়েছিল, সেই হত্যা সে করেছিল না। আর এরপর সাজা কাটিয়ে জেল থেকে ছাড়া পেয়ে মান্যা আন্ডারওয়ার্ল্ডে নিজের জায়গা বানিয়ে নেয়। নিজের অনেক বন্ধুদেরও সে গ্যাংয়ে যুক্ত করে নেয়। এরপর সে একের পর এক হত্যা করতে থাকে।

Back to top button
Close