India Rag Exclusiveবিশেষ

অখন্ড ভারতের সবথেকে বড়ো সিনেমা ‘রাম রাজ্য’! দেখতে গিয়েছিলেন গান্ধীজিও

ভগবান রামকে নিয়ে বিদ্রোহের শেষ নেই। অনেক বামপন্থী বুদ্ধিজীবী সেক্যুলার আবার রামকে সরাসরি উত্তর ভারতের দেবতা বলে দেগে দেন। কিন্তু ইতিহাসের পাতায় চোখ রাখলে দেখা যাবে ভগবান রামের সঙ্গে ভারতবাসীর সম্পর্ক সুপ্রাচীন। সবথেকে আকর্ষনীয় বিষয়, দেশভাগের আগে এই ভারতবর্ষের বুকে ১৯৪৩ সালে মুক্তি পেয়েছিল বিখ্যাত চলচ্চিত্র ‘রাম রাজ্য’। গান্ধীজি বারংবার বিভিন্ন জায়গায় উল্লেখ করেছেন রাম রাজ্য তাঁর দেখা একমাত্র হিন্দি ছবি এবং এই সিনেমাটি তিনি বহুবার দেখেছেন ।

চলচ্চিত্র নির্মাতা বিজয় ভাট ১৯৪২ সালের পৌরাণিক ছবিটি নির্মাণ করেছিলেন। বাপুজী তার আগে কেবলমাত্র ইংরেজি চলচ্চিত্র ‘মিশন’ মস্কোতে দেখেছিলেন। গান্ধীজির কোনো চলচ্চিত্র নিয়ে বিশেষ ভালোবাসা ছিল না, কিন্তু রামরাজ্য ছিল একমাত্র ব্যতিক্রম।

প্রেম আদিব রামের চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন এবং মা সীতার চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন শোভনা সমার্থ। উভয়েই শ্যুটিং চলাকালীন মদ্যপান থেকে বিরত ছিলেন। তৎকালীন সময়ে সারা ভারতজুড়ে সিনেমাটি ব্যাপক সাড়া ফেলেছিল। ১৯৪০ এর দশক থেকে রামায়ণ নিয়ে অসংখ্য চলচ্চিত্র নির্মিত হয়েছে তবে ‘রাম রাজ্য’ ছিল অন্যতম। সিনেমাটি ১০০ সপ্তাহেরও বেশি সময় ধরে চলেছিল এবং সিনেমা বিশেষজ্ঞদের মন জয় করেছিল।‌

লক্ষণীয়, তৎকালীন চলচ্চিত্রের চেয়ে এটি ছিল উন্নত। সুর ​​ও অলৌকিক বিষয়গুলির উপর নির্ভর করার পরিবর্তে বিজয় ভাট রামকে আদর্শ পুত্র ‍ এবং রাষ্ট্রনায়ক হিসাবে চিত্রিত করেছিলেন। তিনি কর্তব্যবোধ এবং ব্যক্তিগত সুখ বোধেকে কেন্দ্র করে কোনও ব্যক্তির অভ্যন্তরীণ অশান্তির দিকে মনোনিবেশ করার জন্য ছদ্মবেশ এবং বিশেষ প্রভাবগুলি সম্পর্কে স্পষ্টভাবে আলোচনা করেছিলেন। সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় এই সিনেমাকে নিয়ে বেশ চর্চা শুরু হয়েছে। অনেকে বলেছেন অখন্ড ভারতে এই সিনেমা একটা গৌরবের বিষয়।

Related Articles

Back to top button