Press "Enter" to skip to content

চুমু দিয়ে করোনা সারানোর দাবি করা পীর ‘আসলাম” এর মৃত্যু করোনায়! চুমু দিয়ে পজেটিভ করে গেলেন আরও ২৯ জনকে

শেয়ার করুন -

হাতে চুম্বন (Kiss) করলেই সেরে যাবে করোনা (COVID-19), বিধান দিচ্ছেন তান্ত্রিক বাবা। কিন্তু এই তান্ত্রিক বাবা আসলে একজন মুসলিম ব্যক্তি। যিনি করোনা পজেটিভ হয়ে মারা যাবার পরই তাঁর আসল রহস্য উতঘাটন হতে শুরু করেছে। এই মুসলিম ব্যক্তির সঙ্গে আক্রান্ত করে গেলেন তাঁর ২৯ জন ভক্তকেও। আজকের দিনেও ঝাড় ফুঁক, তন্ত্র মন্ত্রের উপর বিশ্বাস করে করোনা আক্রান্ত হলেন রতলামের নয়াপুরার বেশ কিছু মানুষ।

গত ৪ ই জুন আসলাম নামে এক মুসলিম ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। করোনা পজেটিভ হওয়ার কারণে ওই মৌলবির মৃত্যুর পর, তাঁর সংস্পর্শে আসা লোকজনদের চিহ্নিত করা হয়েছে। পরীক্ষা করে দেখা গেছে বর্তমানে তারাও করোনা ভাইরাস দ্বারা আক্রান্ত হয়েছেন। কিন্তু এই মুসলিম ব্যক্তিকে তান্ত্রিক বাবা নাম করে অনেকেই ভুল খবর ছড়াচ্ছে।

চুম্বনের মাধ্যমে রোগ সারাতেন এই মুসলিম ব্যক্তি
মধ্যপ্রদেশের রতলামে নয়াপুরায় আসলাম নামে এক মুসলিম ব্যক্তি তাবিজ কবজ দিয়ে মানুষের সমস্যার সমাধান করতেন। কিন্তু করোনা মহামারির মধ্যে তিনি নাকি করোনা থেকে বাঁচার জন্য ওষুধ দিতেন ভক্তদের। এবং সেই সঙ্গে ভক্তদের হাতে চুম্বনও করতেন। প্রতিদিনই প্রচুর সংখ্যায় ভক্ত যেতেন তাঁর কাছে। তবে ওই মুসলিম ব্যক্তি করোনা সংক্রমিত হওয়ার পর থেকেই ওই অঞ্চলটিকে করোনার হটস্পট হিসাবে চিহ্নিত করা হয়।

আক্রান্ত হলে ২৯ জন ভক্ত
আসলামের মৃত্যুর পর তাঁর সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদেরকে শনাক্ত করছে স্থানীয় প্রশাসন। তাঁদের মধ্যে ২৯ জনের শরীরে করোনা পজেটিভ পাওয়া গিয়েছে। ইতিমধ্যেই আক্রান্তদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে। এবং বাকিদেরকেও শনাক্তকরণের কাজ চলছে।

কোয়ারেন্টিন রাখা হয়েছে বাকিদের
ওই অঞ্চল থেকে আরও কয়েকজন বাবাকে কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে রাখা হয়েছে। কিন্তু তারা অভিযোগ করছে, সেখানে তাঁদের কোন বিশেষ সুযোগ সুবিধা দেওয়া হচ্ছে না। তাঁদের ঠিকমত চিকিৎসাও করা হচ্ছে না। তাঁদের অভিযোগ করোনা মহামারির কারণে তারা সমস্ত কাজ বন্ধ রেখেছেন। এবং তাঁদের সেখানে শুধু আটকে রাখা হয়েছে।