নতুন খবরভারতবর্ষ

হিন্দু মহিলার সঙ্গে মুসলিম পুরুষের দ্বিতীয় বিয়ে অবৈধ: গুয়াহাটি হাইকোর্ট

হিন্দু- মুসলিম বিবাহের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ রায়দান করেছে গুয়াহাটি হাইকোর্ট (The Gauhati High Court)। মঙ্গলবার আদালত রায়দান করেছে, যে বিশেষ বিবাহ আইন, ১৯৫৪ অনুযায়ী হিন্দু মহিলার সঙ্গে একজন মুসলিম পুরুষের দ্বিতীয় বিয়ে অবৈধ।সম্প্রতি ১২ বছর বয়সী এক ছেলের মা এবং সাহাবুদ্দিন আহমেদের দ্বিতীয় স্ত্রী দিপামণি কলিতা আদালতে একটি লিখিত আবেদন করেছিলেন। অভিযোগ ছিল তার পেনশন এবং অন্যান্য পেনশনারি বেনিফিটের দাবি আটকে দেওয়া হয়েছে। ভারতীয় সংবিধানের ২২৬ অনুচ্ছেদের অধীনে ২০১৯ সালে লিখিত পিটিশন দায়ের করা হয়েছিল।

মৃত্যুর সময় আহমেদ কামরুপ (গ্রামীণ) জেলায় জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে ‘লাত মণ্ডল’ হিসেবে কর্মরত ছিলেন। আদালত বলেছে,” দ্বিমত নেই যে আবেদনকারী এবং প্রয়াত সাহাবুদ্দিন আহমেদের মধ্যে বিবাহ হয়নি কিন্তু এমন কোনও নথি নেই যা দ্বারা প্রমাণিত হয় যে আবেদনকারীর স্বামীর প্রথম পক্ষের স্ত্রীর সঙ্গে বিবাহ বাতিল হয়েছে।”

সুপ্রিম কোর্টের একটি রায় উল্লেখ করে বিচারপতি বলেছেন, “মুসলিম আইনে বলা হয়, একজন মুসলিম পুরুষের সঙ্গে মূর্তি পূজারী মহিলার বিবাহ বৈধ বা কার্যকর বিবাহ নয়, বরং এটি অবৈধ বিবাহ।” আদালত জানিয়েছে, আবেদনকারী মুসলিম নয় এবং ইসলামিক রীতি ও আইন ব্যতীত বিবাহ না হ‌ওয়ায় এই বিয়ে অবৈধ।দেখা গিয়েছে, আবেদনকারী স্পেশাল ম্যারেজ অ্যাক্ট, ১৯৫৪- এর অধীনে বিবাহিত ছিলেন এবং উক্ত আইনের ধারা ৪(এ) -এর বিধান অনুযায়ী এই বিবাহ বাতিল বলে ঘোষণা করা হয়েছে।

১৫ পাতার আদালতের রায়ে বলা হয়েছে, “আবেদনকারী এখনও তার হিন্দু নাম ব্যবহার করছেন এবং রেকর্ডে এমন কিছু নেই যা থেকে প্রমাণ হয় যে আবেদনকারী ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছিলেন”।আদালত লিখিত আবেদন খারিজ করে দিয়েছে কিন্তু রায় দিয়েছে যে আইন মোতাবেক আবেদনকারীর নাবালক পুত্রকে পেনশন এবং অন্যান্য পেনশনারি সুবিধার অধিকারী করা হবে।

Related Articles

Back to top button