আন্তর্জাতিকনতুন খবর

আফগান হিন্দু ও শিখ সম্প্রদায়ের আবেদন, ‘খুব দেরী হওয়ার আগে আমাদের বাঁচান”

নয়া দিল্লীঃ আমেরিকা (America) সেনা প্রত্যাহারের পর থেকেই আফগানিস্তানে (Afghanistan) ভয়াবহ পরিস্থিতি হয়ে উঠেছে। আর এই পরিস্থিতিতে বাঁচার তাগিদে আফগানিস্থানের সংখ্যালঘু হিন্দু ও শিখরা আন্তর্জাতিক মহলের কাছে সময় থাকতে তাঁদের উদ্ধার করার আর্জি জানিয়েছে। সর্বভারতীয় একটি সংবাদমাধ্যমের রিপোর্ট অনুযায়ী, কাবুলের গুরুদ্বারের করতা পরবানের অধ্যক্ষ গুরনাম সিং বলেছেন, তালিবানিরা দেশের বহু এলাকা দখল করে নিয়েছে। বর্তমানে ১৫০ শিখ আর হিন্দু এখানেই রয়েছে আর সুরক্ষিত আছে। কিন্তু এটা বলতে পারব না যে, আমরা কতক্ষণ সুরক্ষিত থাকতে পারব। গুরনাম সিং জানান, আমরা সবাই তুমুল আতঙ্কের মধ্যে দিয়ে দিন কাটাচ্ছি।

গুরনাম বলেন, কাবুলের পাঁচটির মধ্যে চারটি গুরুদ্বার বন্ধ হয়ে গিয়েছে। আর শ্রী গুরু গ্রন্থ সাহিবের প্রকাশ গুরুদ্বার করতা পরবনেই করা হচ্ছে। গুরনাম বলেন, এখানে থাকা হিন্দু আর শিখরা ভারতে যেতে চাইছে না, কারণ তাঁদের কাছে কোনও আর্থিক সুরক্ষা নেই।

আর এরই মধ্যে মনমীত সিং ভুল্লর ফাউন্ডেশন, খালসা এইড কানাডা আর কানাডার বিশ্ব শিখ সংগঠন (WSO) কানাডা সরকারের কাছে আফগানিস্তানে বসবাসকারী আর্থিক দিক থেকে কমজোর শিখ আর হিন্দু সংখ্যালঘুদের জন্য একটি বিশেষ অভিযান চালানোর আবেদন জানিয়েছে।

WSO-র আইনজীবী বলপরীত সিং বোপারাই বলেছেন, ‘আমরা তাঁদের সঙ্গে যোগাযোগে রয়েছি যারা কানাডার সরকারের কাছে আফগানিস্তানে বসবাসকারী আর্থিক দিক থেকে দুর্বল সংখ্যালঘুদের সুরক্ষা দেওয়ার জন্য দ্রুত গতিতে পদক্ষেপ নেওয়ার কথা বলছে। এরমধ্যে শিখ আর হিন্দু সংখ্যালঘুরা আছে, যারা দীর্ঘদিন ধরে আফগানিস্তানে জঙ্গিদের নিশানা হয়ে আসছে। গুরুদ্বার আর মন্দিরে হামলার কারণে বহু বাচ্চা আর বয়স্কের মৃত্যু হয়েছে। আগামী দিনে আরও মৃত্যু হলে আমরা নিজেদের মুখ আয়নায় দেখতে পারব না।”

প্রসঙ্গত, আফগানিস্তানে আমেরিকার আর ন্যাটো সেনা প্রত্যাহারের প্রক্রিয়া একদম শেষ পর্যায়ে। আর এই কারণে যুদ্ধগ্রস্ত দেশে আরও একবার অরাজকতা এবং হিংসা বেড়ে চলেছে।

Related Articles

Back to top button