Press "Enter" to skip to content

চৈত্র নবরাত্রির দিনে মন্দিরে ঢুকে ভগবানের মূর্তি ভাঙচুর! এলাকায় উত্তেজনা! গ্রেফতার এক

শেয়ার করুন -

নয়া দিল্লীঃ দিল্লীর দ্বারকায় চৈত্র নবরাত্রির প্রথম দিন মন্দিরে ভাঙচুরের ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা ছড়ায়। পুলিশ তৎক্ষণাৎ অ্যাকশন নিয়ে অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে নেয়। পুলিশ জানিয়েছে যে, অভিযুক্তর মানসিক পরীক্ষা করানোর দরকার। অভিযুক্ত দ্বারকা এলাকার ককরৌলার হনুমান মন্দিরে ঢুকে কুড়ুল দিয়ে ভগবানের মূর্তি ভেঙে দেয়। পুরোহিত সকালে মন্দিরে পুজো করতে ঢুকলে দেখে যে মূর্তি ভেঙে পড়ে রয়েছে। এরপর তিনি স্থানীয়দের খবর দেন আর সেই খবর চারিদিকে আগুনের মতো ছড়িয়ে পড়ে। ঘটনাস্থলে উপস্থিত ভিড় বিক্ষোভ দেখায়।

মন্দিরে হওয়া ভাঙচুরের ঘটনার পর পুলিশ এলাকার CCTV ফুটেজ খতিয়ে দেখে ৫০ বছরের এক অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে। ওই অভিযুক্তের নাম মহেশ ওরফে ‘ভূত”। অভিযুক্ত ভূত পেশায় মুচি আর সে জেজে কলোনির বাসিন্দা। পুলিশ মূর্তি ভাঙার জন্য ব্যবহৃত কুড়ুলটিও উদ্ধার করেছে। জিজ্ঞাসাবাদে ভূত নিজের দোষ স্বীকার করে নিয়েছে।

অভিযুক্ত জানায়, ‘লাগাতার গরম বেড়েই চলেছে, কিন্তু হনুমান জি মানুষের স্বস্তির জন্য একটুও বৃষ্টি করাচ্ছে না। এই কারণে আমি রেগে গিয়ে এই কাণ্ড করি।” কিছুদিন আগে ভূতের একটি ভিডিও প্রকাশ্যে এসেছিল, যেখানে তাঁকে জামাকাপড় খুলে নাচতে দেখা গিয়েছিল।

দ্বারকার ডিসিপি সন্তোষ মিনা বলেন, তিনি সকাল প্রায় পৌনে আটটা নাগাদ মন্দিরে মূর্তি ভাঙার খবর পান। ঘটনাস্থলে পৌঁছে আমি পদক্ষেপ নেওয়ার আশ্বাস দিন। তখন সেখানে বজরং দল সমেত আরও কয়েকটি সংগঠন রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ প্রদর্শন করা শুরু করে দেয়। পুলিশ আধিকারিকরা তখন অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে কড়া শাস্তি দেওয়ার আশ্বাস দেয়। পুলিশ ধার্মিক ভাবাবেগে আঘাত করার অভিজগে 295 আর 295A ধারায় মামলা দায়ের করে অভিযুক্তকে জেলে পাঠায়।