নতুন খবরভারতবর্ষ

বড়সড় ষড়যন্ত্র ব্যর্থ করে চীন-পাকিস্তানকে জোর ঝটকা দিল ভারত, মাথায় হাত ইমরান-জিনপিংয়ের

নয়া দিল্লিঃ পাকিস্তানের (Pakistan) করাচি বন্দর থেকে চীনের (China) সাংহাইতে যাচ্ছিল জাহাজ। যাতে বোঝাই করা ছিল তেজস্ক্রিয় পদার্থ (Radioactive Substances)। সেটিকে আটক করল ভারত (India)। শিল্পপতি গৌতম আদানির মুন্দ্রা বন্দর (Mundra Port) থেকে বাজেয়াপ্ত হল এই পাক জাহাজ। কিছুদিন আগেই মাদক, আর এবার এই তেজস্ক্রিয় পদার্থ উদ্ধার করলেন আধিকারিকরা। গুজরাটের মুন্দ্রা বন্দরে ওই জাহাজ থেকে প্রাপ্ত তেজস্ক্রিয় পদার্থকে ইতিমধ্যেই বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।

জানা গিয়েছে, শুধুমাত্র গুজরাটের মুন্দ্রা বন্দর নয়, ভারতের কোন বন্দরের জন্যই ওই জাহাজটি বা জাহাজ মধ্যস্থ কন্টেইনারগুলি আসেনি। পাকিস্তানের করাচি বন্দর থেকে চীনের সাংহাইতে যাচ্ছিল জাহাজটি। জলপথে যাওয়ার সময় মুন্দ্রা বন্দরে সেটি থামতেই, ভারতীয় কর্তৃপক্ষরা সেটিকে আটকায়।

এই মুন্দ্রা বন্দর পরিচালনা করে থাকে আদানি পোর্টস অ্যান্ড এসইজেড (APSEZ)। ঘটনার বিষয়ে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ‘ওই বিদেশী জাহাজটি যখন মুন্দ্রা বন্দরে আসে, তখন কাস্টমস (Customs) এবং ডিআরআই-এর (DRI) একটি যৌথ দল জাহাজটিকে আটক করে। আগে থাকতেই তাঁদের কাছে খবর ছিল, ওই জাহাজের কন্টেইনারগুলোতে ”অঘোষিত বিপজ্জনক পণ্য” রয়েছে’।

কর্তৃপক্ষ এক বিবৃতিতে জানায়, ‘বৃহস্পতিবার অর্থাৎ ১৮ ই নভেম্বর গুজরাটের মুন্দ্রা বন্দর থেকে ওই বিদেশী জাহাজ থেকে বেশ কয়েকটি কন্টেইনার বাজেয়াপ্ত করা হয়। জানা গিয়েছে ওই কন্টেইনারগুলোর মধ্যে ”অঘোষিত বিপজ্জনক পণ্য” রয়েছে। কিন্তু মালবাহী জাহাজটি বিপজ্জনক নয় বলেই প্রথমে তালিকাভুক্ত করা থাকলেও, পরবর্তীতে সন্দেহ হওয়ায় কাস্টমস এবং ডিআরআই দল সেটিকে বাজেয়াপ্ত করে। জানা যায় ওর মধ্যে তেজস্ক্রিয় পদার্থ রয়েছে’। স্বভাবতই ভারতের এই পদক্ষেপে যে চীন ও পাকিস্তান যৌথ ভাবে বড় ঝটকা খেল, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।

প্রসঙ্গত, গত সেপ্টেম্বর মাসে ওই বন্দর থেকেই প্রায় ২০ হাজার কোটি টাকার প্রায় ৩,০০০ কিলোগ্রাম হেরোইন বাজেয়াপ্ত করা হয়েছিল। ‘পাউডার’ আমদানির নাম করে আফগানিস্তান থেকে মাদক চোরাচালান হচ্ছিল। তখন ডিআরআই আধিকারিকরা দুই ব্যক্তিকে গ্রেফতারও করেছিল।

Related Articles

Back to top button