Press "Enter" to skip to content

লাদাখ সীমান্তে মোতায়েন হল টি-৯০ ভীষ্ম, নিশানায় চীনের লাইফ লাইন

শেয়ার করুন -

নয়া দিল্লীঃ ভারত (India) নিজেদের ঘাতক T-90 ট্যাংককে লাদাখে (ladakh) মোতায়েন করে দিয়েছে। ভারত আর চীনের মধ্যে লাদাখে শুরু হওয়া বিবাদ প্রায় দুই মাস হতে চলেছে। খবর অনুযায়ী, চীন নিজেদের সীমান্তে ট্যাংক আর আর্মড বাহন, কামান আর সেনার মোতায়েন বাড়িয়ে দিয়েছে। মোক্ষম জবাব দিতে ভারতও ঘাতক হাতিয়ার আর স্পেশ্যাল ফোর্সকে লাদাখে চীন সীমান্তে মোতায়েন করেছে।

লাদাখের খোলা প্রান্তর ট্যাংককে কাজে লাগানোর ভালো সুযোগ। পূর্ব লাদাখের স্পাঙ্গুর গ্যাপ থেকে সোজা চীনে যাওয়া যায়। এছাড়াও ডেমচৌক এলাকার পাঁচটি গুরুত্বপূর্ণ গ্যাপের সুরক্ষার দায়িত্বও ট্যাংক সামলাচ্ছে। দুটি এলাকাতেই খোলা ময়দান আছে, যেখানে ট্যাংক গুলো গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

ওই এলাকায় মাটির বদলে বালি বেশি, তাই ট্যাংকের মাধ্যমে দ্রুত এগিয়ে যাওয়া সহজ হবে। স্পাঙ্গুর গ্যাপ অথবা ডেমচৌক দুটি জায়গা থেকেই চীনের গুরুত্বপূর্ণ ২১৯ হাইওয়ে ৫০ কিমির বেশি দুরত্ব না। যদি যুদ্ধের পরিস্থিতি হয়, তাহলে চীনের কাছে এই হাইওয়ের সুরক্ষা করা সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হয়ে দাঁড়াবে। আর সেই সময় এই রাস্তা ভারতীয় ট্যাংকের জন্য সহজ নিশানা হয়ে যাবে।

লাদাখে ভারত ২০১৬ সালে ট্যাংকের প্রথম ব্রিগেড মোতায়েন করেছিল। প্রথমে টি-৭৫ ট্যাংক মোতায়েন করেছিল ভারত। কিন্তু চীনের তরফ থেকে টি-৯৫ ট্যাংক মোতায়েন করার খবর পাওয়ার পর ভারত টি-৯০ ট্যাংক পাঠিয়ে দিয়েছে। ১৯৬২ এর যুদ্ধে ভারতীয় সেনা লাদাখে হালকা এএসএক্স ট্যাংক পাঠিয়েছিল।

ওই ট্যাংক গুলো চুশুল, প্যাংইয়াং লেক এলাকায় চীনের বিরুদ্ধে কড়া মোকাবিলা করে তাদের রুখতে সক্ষম হয়েছিল। পুরনো অভিজ্ঞতা থেকে ভারতীয় সেনা এটা বুঝে নিয়েছে যে, লাদাখের বালির ময়দানে ভালো ট্যাংক যুদ্ধের পরিস্থিতি বদলে দিতে পারে।