Press "Enter" to skip to content

ভিখারি পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে যোগ্য জবাব দিলো ভারত

শেয়ার করুন -

নয়া দিল্লীঃ বিদেশ মন্ত্রালয়ের মুখ্যপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব পাকিস্তানের (Pakistan) প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের (Imran Khan) বড়বড় বচনের মুখোশ খুললেন। অনুরাগ শ্রীবাস্তব বলেন, পাকিস্তানকে এটা মনে রাখা উচিৎ যে তাদের মোট GDP এর ৯০% ঋণ আছে। আর ভারতের কথা বললে, আমাদের আর্থিক প্যাকেজ পাকিস্তানের GDP এর থেকে বড়।

উল্লেখ্য, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বৃহস্পতিবার বলেছেন যে, ‘ভারতের ৩৪ শতাংশ পরিবারের কাছে আর্থিক সাহায্য পৌঁছে দেওয়া জন্য আমরা ভারতকে সাহায্য করতে চাই। আমরা যেভাবে আমদের দেশে গরীব পরিবার গুলোর কাছে সাহায্য পৌঁছে দিয়েছি, সেটার প্রশংসা গোটা বিশ্ব জুড়ে হচ্ছে, আর ভারতকেও সেই পদ্ধতি শেখাতে চাই। ” পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের এই মন্তব্যের পতিক্রিয়া দিয়েছেন বিদেশ মন্ত্রালয়ের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব।

গতকাল পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ট্যুইট করেছিলেন যে, ভারতে ৩৪% পরিবার এমন আছে যারা এক সপ্তাহের মধ্যে আর্থিক সাহায্য না পেলে মহা বিপদের মধ্যে পড়বে। উনি লেখেন, আমি এই সঙ্কটের সময় ভারতের সাহায্য করার জন্য প্রস্তুত আছি। কিভাবে মানুষের অ্যাকাউন্টে টাকা ট্রানস্ফার করতে হবে সেটা আমি ভারতকে জানাতে চাই।

ইমরান খান দাবি করে বলেছেন যে, আমাদের টেকনোলোজির প্রশংসা গোটা বিশ্বে হচ্ছে আমাদের সরকার ৯ সপ্তাহে ১২০ বিলিয়ন টাকা এক কোটি মানুষের কাছে পৌঁছে দিয়েছে। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী লেখেন, করোনার সঙ্কটের মধ্যে পাকিস্তান সরকার গরিবদের সাহায্য করেছে।

যদিও পাকিস্তানি প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের এই প্রস্তাব ভারতের মানুষের খুব একটা পছন্দ হয়নি। ওনার এই ট্যুইটের জবাবে ভারতীয়রা পাকিস্তানের বর্তমান পরস্থিতি আর করোনার বিরুদ্ধে নেওয়া পদক্ষেপের সমালোচনা শুরু করে দেয়।

আরেকদিকে, অনেকেই এটা মুখোশের আড়ালে পাকিস্তানের আরেকটি চরিত্র বলেন, একদিকে পাকিস্তান বর্ডারে লাগাতার ফায়ারিং করছে, এবং জঙ্গিদের লাগাতার ভারতে পাঠিয়ে চলেছে তখন আরেকদিকে আন্তর্জাতিক স্তরে নিজেদের ছবি পরিস্কার করার জন্য এরকম ট্যুইট করছে।

জানিয়ে দিই, বর্তমান সময়ে পাকিস্তান নিজেই চরম আর্থিক সঙ্কটের সন্মুখিন। এবং করোনা ভাইরাসে নাজেহাল। এমনকি ইমরান খান নিজেই বলেছিলেন যে, আমরা দেশে দীর্ঘ সময় পর্যন্ত লকডাউন জারি রাখতে পারব না কারণ আমাদের সরকারের কাছে এত পয়সা নেই। আর আমাদের দেশে দরিদ্র শ্রেণীর মানুষের সংখ্যা অনেক বেশি। আর সেই ইমরান খানই এখন বলছে যে, আমরা ভারতের গরিবের সাহায্যের জন্য কাজ করতে চাই।