আন্তর্জাতিকনতুন খবর

চীন যা ভয় পাচ্ছিল ঠিক সেটাই করে দিল ভারত! সামরিক ও কূটনৈতিক ক্ষেত্রে মাস্টারস্ট্রোক ভারত সরকারের

আপনারা India Rag এর নিয়মিত পাঠক হলে ভারতীয় সেনা ও চীন সম্পর্কিত সপ্তাহ আগে প্রকাশিত একটা খবর নিশ্চয় মনে থাকবে। খবরটি ছিল এই যে, চীন স্বীকার করেছে পাহাড়ি যুদ্ধে ভারতীয় সেনা ভয়ঙ্কর ও সর্বশ্রেষ্ঠ। প্রথমত জানিয়ে দি, চীনের সেনা স্বীকার না করলেও এই বিষয়টি বিশ্বের সমস্ত দেশ জানে।

এর কারণ কার্গিল যুদ্ধে ভারতীয় সেনা যা করেছিল তা বিশ্বের কোনো সেনার পক্ষে করা সম্ভব নয়। ভারতের মাউন্টেন ফোর্স এর দক্ষতাকে টক্কর দেওয়ার মতো শক্তি পুরো বিশ্বে খুঁজে মেলা ভার। আর ভারত এই সেনাকেই ভারত চীন সীমান্তে মোতায়েন করে দিয়েছে।

সীমান্তে মোতায়েন এই মাউন্টেন ফোর্স গেরিলা যুদ্ধে মহারত হাসিল করেছে। খারাপ থেকে খারাপ পরিস্থিতিতে শত্রুদের বিনাশ করতে সক্ষম এই সেনা। বিশেষ করে এদের পাহাড়ে লড়াই করার জন্য স্পেশ্যাল ট্রেনিং দেওয়া হয়েছে। চীনের এক্সপার্ট এই মাউন্টেন ফোর্সদের নিয়ে বলেছিল যে, বিশ্বের সবথেকে ভয়ানক সেনা আছে ভারতের কাছে। উনি এমনও বলেছিলেন যে, এই সেনা আমেরিকা, ব্রিটেন সমেত বিশ্বের শক্তিধর দেশের কাছেও নেই। আর এখন এই ফোর্সকে সীমান্তে মোতায়েন করাতে থতমত খেয়ে গেছে চীন।

শুধু এই নয়, চীনকে শিক্ষা দিতে ভারত সরকারের রক্ষামন্ত্রী রাশিয়া সফরে রয়েছেন। তবে উনি রাশিয়াকে নিউট্রাল রাখার জন্য নয় বরং এক ঢিলে দুই পাখি মারার জন্য প্রস্তুতি নিয়ে গেছেন। সূত্রের খবর অনুযায়ী, রাজনাথ সিং S-400 সিস্টেমকে দ্রুত ভারতে আনার জন্য জোর দেবেন। তুর্কি রাশিয়াকে যে S-400 অর্ডার দিয়েছে তা কিছু বিশেষ কারণে আটকে রয়েছে। যেটাকে ভারত পাওয়ার চেষ্টা করবে কারণ ভারত নিজের সিস্টেম পেতে গেলে আরো একটু বেশি সময় লাগবে।

একইসাথে রাশিয়াকে আরো একটু সক্রিয়ভাবে চীনের বিরুদ্ধে কাজে লাগতেও নেমে পড়েছে ভারত। রাশিয়ার সাথে ভারত ও চীন দুই দেশের বাণিজ্যিক সম্পর্ক ভালো। তবে রাশিয়ার সাথে চীনের সীমান্ত নিয়ে বিতর্ক রয়েছে। একইসাথে চীন এখন সামরিক বাজারে রাশিয়ার জায়গা দখল করার চেষ্টায় রয়েছে। অর্থাৎ চীন যুদ্ধের অস্ত্র বিক্রিতে রাশিয়ার কাস্টমারের উপর ভাগ বসাচ্ছে। এই দুই ইস্যু কাজে লাগিয়ে ভারত অনেক কাজ বিনা রক্তক্ষয়ে করতে পারে। যার প্রমাণ আজ থেকেই মিলতে শুরু করেছে। আজ রাশিয়ার তরফ থেকে স্পষ্ট ভাষায় বলা হয়েছে, তারা সংযুক্ত রাষ্ট্রে ভারতের স্থায়ী সদস্যতা দেওয়া নিয়ে ভারত সরকারের পাশে আছে।

আজ, রাশিয়ার বিদেশ মন্ত্রী বলেন, এই বৈঠকে সংযুক্ত রাষ্ট্রে সম্ভাবিত সংশোধন আর ভারতকে সংযুক্ত রাষ্ট্রের সুরক্ষা পরিষদের স্থায়ী সদস্য বানানোর দাবিও উঠেছে। উনি বলেন, আমাদের মতে ভারত সংযুক্ত রাষ্ট্রের স্থায়ী সদস্য হওয়ার দাবিবার আর আমরা ভারতকে সম্পূর্ণ সমর্থন করছি। সব মিলিয়ে ভারত সামরিক ও কূটনৈতিক দুই দিক থেকেই চীনকে কোণঠাসা করার পরিকল্পনা বানিয়ে ফেলেছে তা স্পষ্ট।

Back to top button
Close