আন্তর্জাতিকনতুন খবর

ভারতের মিসাইল টেস্ট রুখতে লাদাখ সীমান্তে আবারও উপদ্রব শুরু করল চীন! পাল্টা কড়া মুডে মোদী সরকার

অন্যদেশের জায়গা দখল, বিশ্বজুড়ে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে দেওয়া ইত্যাদি নানা উপদ্রবের কারণে তিন গ্লোবাল ভিলেন হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে। বহু দশক ধরে চীন বিশ্বের কাছে নিজের সাদামাটা ছবি তৈরি করে রেখেছিল। তবে এখন ভারতে নিজের ক্ষমতা বৃদ্ধির সাথে সাথে চীনের পোল খুলে দিয়েছে। যার দরুন চীন এখন অস্বস্তিতে। বর্তমানে ড্রাগনের মূল টার্গেট ভারতের বিরুদ্ধে একের পর এক ষড়যন্ত্র।

তাজা খবর লাদাখ থেকে সামনে আসছে যেখানে চীনের উপদ্রবের উদাহারন ধরা পড়েছে। অরুণাচল প্রদেশ থেকে লাদাখ অবধি দখল করা চীনের বহুদিনের স্বপ্ন। সেই উদ্দেশ্য নিয়েই চীন এখন আরো একবার সামরিক মুভমেন্ট বৃদ্ধি করেছে। কঠিন পরিস্থিতিতে রাতের বেলা যাতে ভারতের উপর লাদাখ সীমান্ত থেকে হামলা করা যায় সেই উদ্যেশে চীন প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে খবর পাওয়া যাচ্ছে।

বিগত কয়েকদিনে চীন বেশকিছু মেশিন গান সহ নতুন অস্ত্র লাদাখ সীমান্তে মোতায়েন করেছে এবং সেইসাথে যুদ্ধঅভ্যাস করেছে বলে সূত্রের খবর। চীনের দাবি তারা নতুন অস্ত্র সত্যের সাথে সৈনিকদের পরিচয় করানোর জন্য এই যুদ্ধঅভ্যাস সম্পন্ন করেছে। তবে সামরিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন এ বিষয়টি কি এত সহজভাবে নেওয়া উচিত নয়। কারণ যদি নতুন হাতিয়ারের সাথে সৈনিকদের পরিচয় করাটা মূল উদ্দেশ্য হতো তাহলে সেটা অন্য কোন স্থানে করানো যেত।

জানিয়ে দি পাহাড়ি এলাকায় ভারতীয় সেনাদের যুদ্ধের যে দক্ষতা রয়েছে তা চীনের সেনাদের মধ্যে নেই। সম্ভাবনা রয়েছে নিজেদের সৈনিকদের মধ্যে সেই দক্ষতা তৈরি করার উদ্দেশ্যেই এবং যুদ্ধের প্রস্তুতি নেওয়ার জন্যই এই যুদ্ধে অভ্যাসের আয়োজন হয়েছে। অন্যদিকে ভারতের অগ্নি (V) মিসাইল টেস্ট বন্ধ করার জন্য চীন সমস্ত শক্তি লাগিয়ে দিয়েছে।

জাতিসংঘ থেকে শুরু করে অন্যান্য সমস্ত বিস্তারের প্লাটফর্মে চীন ভারতের ভারতের মিসাইল টেস্ট আটকানোর জন্য আওয়াজ তুলেছে। অনেকের মতে যুদ্ধের ভয় দেখিয়ে চীন ভারতের মিসাইল টেস্ট আটকানোর প্রয়াসে লেগেছে, আর সেই কারণেই লাদাখ সীমান্তে নতুন উপদ্রবের সূচনা হয়েছে। যদিও কোন দেশের হুঁশিয়ারিতে ভারত নিজের কোন প্রজেক্টে বন্ধ রাখবে না তা সরকারের তরফে স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

Related Articles

Back to top button